কি এই হাইড্রোপনিক কাল্টিভেশন এবং কিভাবে করা হয়?

সারা বিশ্বে নানা ধরনের  বৈজ্ঞানিক পদ্ধতির মাধ্যমে চাষাবাদের উন্নয়ন করা হচ্ছে। আর হাইড্রোপনিক কালটিভেশন সেরকমই একটি চাষাবাদের বিশেষ পদ্ধতি। যেখানে মাটি বা ওই ধরনের কোনো পদার্থ ছাড়াই চাষ করা হচ্ছে নানা ধরনের শাক, সবজি ইত্যাদি।

আসলে এই হাইড্রোপনিক চাষ হয় জলের সাহায্যে। হাইড্রোপনিক কালটিভেশন কথার অর্থ হল জলচাষ বিদ্যা। প্রথমে বীজকে অল্প জলে রেখে অঙ্কুরিত করা হয়। এরপর এখানে নানা প্রকারে অঙ্কুরিত বীজকে জলের ওপর উদ্ভিদে পরিনত করা হয়।

অনেকেই বাড়িতে ছাদবাগান বানিয়ে থাকেন এবং রোপণ করেন নানা ধরনের ফল ও ফুল গাছ। তবে তার জন্য ব্যবহার করতে হয় বেশ অনেক পরিমাণে মাটি, রাসায়নিক সার, জৈব সার, জল, কীটনাশক প্রভৃতি। কিন্তু এই প্রচুর পরিমাণ মাটি জোগাড় করা সব ক্ষেত্রে সহজ হয় না। তাই এই জায়গায় জলচাষ পদ্ধতি হয় সহয ও সাবলীল এবং এতে মাটি জোগাড় আর টবের জন্য মাটি তৈরি করতে হয় না।

জালিদার বা ছিদ্রবিশিষ্ট কোন পাত্রের মধ্যে চারা গাছ বসিয়ে দিতে হয়। যাতে করে ওই ছিদ্র গুলি দিয়ে গাছের শেকর নিচে বেরিয়ে আসতে পারে।এরকম পরিস্থিতিতে নিচে একটি জলভর্তি পাত্র রাখতে হয় যাতে শেকর গুলি জলে ডুবে থাকতে পারে।

আরও পরুন – কেমন ছিল বিজ্ঞান ভিত্তিক লিওনার্দো?

জালিদার বা ছিদ্রবিশিষ্ট পাত্রের মধ্যে মাটির বদলে ব্যবহার করা হয় বালি নুড়িপাথর স্পঞ্জ এই জাতীয় পদার্থ যাতে ওই পাত্রের মধ্যে গাছগুলি সবল হয়ে দাঁড়িয়ে থাকতে পারে। এইরকম পাত্রে গাছগুলো সফলভাবে রোপন হলে সেটিকে জলের ওপর বসিয়ে দিতে হয়। মাটির মধ্যে গাছ যে পুষ্টিকর খাদ্য সংগ্রহ করে এবার সেটা জলের মধ্যে থেকে করবে।

হাইড্রোপনিক কাল্টিভেশন

পাত্রের জলে বাজার থেকে আনা রাসায়নিক বা জৈবিক সার সময় ও পরিমাণমতো ভাবে মিশিয়ে দিতে হবে। হাইড্রোপনিক চাষের ক্ষেত্রে যেমন সময় বাঁচে তেমনি এটা যে কোন জায়গায় করা সম্ভব, তবে রোদের প্রয়োজন আছে। বাড়িতে শাকসবজি করার জন্য এই পদ্ধতিটা অনেক সহজ একটি পদ্ধতি।

এই পদ্ধতিতে বাড়িতে নানারকম শাকসবজি ফুল ফল ইত্যাদি গাছ তৈরি করা সম্ভব। ভিন্ন পরিবেশের অপ্রস্তুত প্রাকৃতিক অবস্থা তেও এই পদ্ধতির চাষ অভিনবত্বের দৃষ্টান্ত রাখছে। বাড়িতে শখে করা থেকে শুরু করে এই হাইড্রোপনিক কাল্টিভেশন লাভের মুখ দেখাচ্ছে গ্রীনহাউজ চাষীদেরও।এশিয়ার অনেক দেশেই এই হাইড্রোপনিক পদ্ধতিতে চাষাবাদ করা হয়ে থাকে। অনেক দেশেই দেখা যায় স্বল্প স্থানে পাইপের মাধ্যমে জলের সাহায্যে ধান চাষ করা হচ্ছে। বিভিন্ন দেশে এই হাইড্রোপনিক পদ্ধতিতে বড় বড় ছিদ্রযুক্ত পাইপ ব্যবহার করতে দেখা যায়। সেক্ষেত্রে প্লাস্টিকের কাপের মধ্যে গাছগুলিকে রোপণ করা হয় এবং সেই পাইপের ছিদ্র গুলির মধ্যে বসিয়ে দেওয়া। এরকম পরিস্থিতিতে পাইপ গুলির মধ্যে দিয়ে জল প্রবেশ করানো হয়। 

এরপর সমস্ত রকম ওষুধ ও রাসায়নিক এই জলের মধ্যে মিশিয়ে দেওয়া হয়। এই পদ্ধতিতে জমি সঠিক না হলেও এই ভাবে ধান এবং অন্যান্য ফসল চাষ করা হয়ে থাকে। বৃহৎ আকারে না হলেও ক্ষুদ্র আকারে এই পদ্ধতিতে চাষ অনেকেই করে থাকে। মাটির অভাবেও ভালো চাষ সত্যিই এক বিশিষ্টতা রয়েছে এই পদ্ধতিতে। 

এই জলচাষ পদ্ধতি তার অভিনবত্বের ছাপ রেখেছে গোটা বিশ্বে। হাইড্রোপনিক কাল্টিভেশন বর্তমান যুগে বিজ্ঞানের একটি সফলতা। যা চমকৃত করেছে পুরো বিশ্ব কৃষিকে।

“কি এই হাইড্রোপনিক কাল্টিভেশন এবং কিভাবে করা হয়?”-এ 2-টি মন্তব্য

Leave a Reply