মঙ্গল গ্রহের মাটি থেকে ‘রক স্যাম্পেল’ সংগ্রহের প্রস্তুতি নিচ্ছে পারসিভেরান্স, জানালো নাসা

আমেরিকার অন্যতম মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র ন্যাশনাল অ্যারোনটিক্স অ্যান্ড স্পেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (নাসা) সম্প্রতি তাদের মঙ্গল যান পারসিভেরান্স রোভারের পরবর্তী মিশন সম্পর্কে বিবৃতি জারি করেছে। নাসা জানিয়েছে মঙ্গল গ্রহের পৃষ্ঠদেশ থেকে রক স্যাম্পল বা পাথরের নমুনা সংগ্রহের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন তারা। আর এই নমুনা সংগ্রহ করা হবে লালগ্রহের ভূপৃষ্ঠে থাকা এনসিয়েন্ট লেক বেড অর্থাৎ একটি প্রাচীন হ্রদ অঞ্চল থেকে। নাসা পূর্বেই জানিয়েছে তাদের এই মঙ্গল অভিযানের পিছনে প্রধান উদ্দেশ্য হলো লাল গ্রহে থাকা যেকোনো রকম প্রাণের সন্ধান করা, আর সেই কাজে যথেষ্ট সহযোগিতা করবে তাদের এই নয়া অভিযান। তাদের আশ্বাস আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যেই তাদের পারসিভেরান্স ইতিহাস তৈরি করবে বিজ্ঞান মহলে।

পৃথিবীর পার্শ্ববর্তী এই লালগ্রহের ভূপৃষ্ঠে থাকা Jezero Crater-এ কিছুদিন আগেই নাসার এই মঙ্গল যান অবতরণ করেছিল। অবতরণের তারিখটি ছিল ৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১। মঙ্গল গ্রহের এই Crater-এর উপর বিজ্ঞানীদের আকর্ষণ ছিল বরাবরই, এই ক্রেটারের মধ্যে রয়েছে ‘Cratered Floor Fractured Rough’ আর এখান থেকেই পাথরের নমুনা সংগ্রহ করতে চাইছেন বিজ্ঞানীরা।

মঙ্গল গ্রহ সম্পর্কে অজানা তথ্য আরো বিশদে জানতে হলে প্রয়োজন সেখানকার পাথরের নমুনার। নাসার অ্যাসোসিয়েট অ্যাসমিনিস্ট্রেটর ফর সাইন্স Thomas Zurbuchen জানিয়েছেন নাসার এই মঙ্গল যান যে সমস্ত নমুনা মঙ্গল গ্রহ থেকে নিয়ে আসবে সেগুলি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করলে তবেই জানা যাবে মঙ্গল গ্রহ সম্পর্কে। ৫২ বছর আগে ঠিক এমনটাই করেছিলেন নীল আর্মস্ট্রং। যিনি চাঁদের বুকে পাথর এর নমুনা সংগ্রহ করে নিয়ে এসেছিলেন পৃথিবীতে। যে নমুনা থেকেই চাঁদ সম্পর্কে বিশদে জানতে পেরেছিলেন বিজ্ঞানীরা। আর এক্ষেত্রে তার কোন বদল হচ্ছে না। মঙ্গল গ্রহ সম্পর্কে জানতে গেলে এই নমুনা গুলি অতি প্রয়োজনীয়।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য গত ১৮ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলের মাটি স্পর্শ করেছিল নাসার মঙ্গলযান
পারসিভেরান্স। তারপরে কেটে গিয়েছে অনেকগুলো দিন। অভিযানে সম্পূর্ণরূপে সফল হয়েছে। এই মঙ্গল যান নিজের অবস্থান থেকে দক্ষিণ দিকে প্রায় এক কিলোমিটার পর্যন্ত ভ্রমণ করে ফেলেছে। শুধু তাই নয় এই, রোভারের সাথে থাকা ছোট্ট একটি হেলিকপ্টার যেটির নাম ছিল Ingenuity সেটিও তার সকল মিশন সপন্ন করার পথেই।

আরো পড়ুন-মহাকাশ ভ্রমণের পরবর্তী অভিজ্ঞ্যতা ভাগ করে নিলেন অ্যামাজনের CEO-জেফ বেজোস

নাসার বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন তাদের পারসিভেরান্স রোভার মঙ্গল গ্রহের যে সমস্ত পাথরের নমুনা সংগ্রহ করে পৃথিবীতে নিয়ে আসবে তার রসায়নিক এবং খনিজ গঠন খতিয়ে দেখা হবে। এমনকি পাথরগুলো কিভাবে সৃষ্টি হয়েছে সেটিও খতিয়ে দেখবেন তারা। যেহেতু এসমস্ত নমুনাই একটি হ্রদ থেকে নেওয়া হয়েছে সে ক্ষেত্রে বিজ্ঞানীরা ধারণা করছেন সেখানে প্রাণের অস্তিত্ব থাকলেও থাকতে পারে। তবে তাদের এই বিশ্বাস কতটা বাস্তবে পরিপূর্ণতা লাভ করে সেটাই এখন দেখার।

“মঙ্গল গ্রহের মাটি থেকে ‘রক স্যাম্পেল’ সংগ্রহের প্রস্তুতি নিচ্ছে পারসিভেরান্স, জানালো নাসা”-এ 1-টি মন্তব্য

Leave a Reply