পাইথন প্রোগ্রামিং ভাষা। Python programming language in bengali

আজকের এই নিবন্ধটিতে পাইথন প্রোগ্রামিং ভাষা সম্বন্ধে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে। পাইথন প্রোগ্রামিং ভাষা কি, কোথায় ব্যাবহৃত হয়, কে তৈরি করেছিল, পাইথন প্রোগ্রামিং ভাষার ইতিহাস ইত্যাদি।

পাইথন প্রোগ্রামিং ভাষা কি | Python programming language

পাইথন একটি কোডিং ভাষা যেটি সারা পৃথিবীতে ব্যবহৃত হয়। বিশ্বের জনপ্রিয় প্রোগ্রামিং ভাষা গুলির মধ্যে পাইথন ৩ নম্বর স্থানে আছে। আপনার দৈনন্দিন জীবনে ব্যবহৃত মোবাইল, কম্পিউটার বা ট্যাবলেটে যে সমস্ত অ্যাপ্লিকেশন বা ভিডিও গেম আপনি উপভোগ করেন সেগুলি প্রায় সবই এই পাইথন ভাষাতে তৈরি। প্রোগ্রামিং ভাষা আমাদের প্রচলিত ভাষা থেকে আলাদা, এটিকে আপনি কম্পিউটারের ভাষা বলতে পারেন। কম্পিউটার বা মোবাইল এই ভাষাই বোঝে। বিশ্বের প্রচলিত প্রোগ্রামিং ভাষা গুলির মধ্যে জাভা, সি, সি++ ইত্যাদির নাম আপনি হয়ত শুনে থাকবেন, পাইথন এদের মতোই একটি ভাষা। 

বর্তমান যুগের আধুনিকীকরণের সাথে নতুন নতুন অ্যাপ্লিকেশন ও সফটওয়্যার তৈরি হচ্ছে, এর সাথে সাথে প্রোগ্রামিং ভাষাতেও পরিবর্তন হচ্ছে যার ফলে আমরা বিভিন্ন জিনিস উপভোগ করতে পারছি। পাইথন একটি খুবই শক্তিশালী ও সরল ভাষা যার সাহায্যে খুব সহজে অ্যাপ্লিকেশন তৈরি করা যায়। java, c, c++ প্রোগ্রামিং ভাষার তুলনায় পাইথন অনেক সহজ একটি ভাষা। যারা প্রোগ্রামিং ভাষা নিয়ে কাজ করে তারা বেশিরভাগ সময় পাইথনকেই বেশি গুরুত্ব দেয়। এই ভাষাটি ব্যবহারের জন্য কোনো লাইসেন্স বা অনুমতি নিতে হয় না আপনি চাইলে ভাষাটি ব্যবহার করতে পারেন। অনান্য প্রোগ্রামিং ভাষার নির্মাণকারকরা চাইলে খুব সহজেই পাইথনের অনুবাদ করে নিতে পারবে। পাইথন একটি শক্তিশালী প্রোগ্রামিং ভাষা হওয়ার কারণে বিশ্বের তাবর ইন্টারনেট ওয়েবসাইট কোম্পানিগুলি অর্থাৎ গুগলের কিছু ভাগ, ইউটিউব, ইনস্টাগ্রাম, পিন্টরেস্ট ইত্যাদি ব্যবহার করে। পাইথনের ভাষাগুলি বিভিন্ন প্রকারের কাজ করতে সক্ষম, একই ভাষা ভিন্ন ভিন্ন কাজে ব্যবহৃত করা যেতে পারে। প্রতিদিন প্রায় হাজার হাজার লোক পাইথন নিয়ে কাজ করে, যারা ভাষাটাকে পরিবর্তন ও নতুন করে তৈরি করে কোনো রকম বাধা ছাড়াই।

পাইথন ভাষা থেকে কি কি তৈরি করা হয়:

পাইথন প্রোগ্রামিং ভাষা দিয়ে ইন্টারনেটের প্রায় সমস্ত কাজই আপনি করতে পারবেন। এর মধ্যে কিছু গুরুত্বপূর্ণ হলো..

●ওয়েবসাইট নির্মাণ ও পরিবর্তন করা। 

●আপ্লিকেশন নির্মাণ।  

●জিওয়াই এপ্লিকেশন। 

●ভিডিও গেম নির্মান। 

●বিভিন্ন মেশিনের প্রোগ্রামিং ভাষা তৈরি করা।

পাইথন প্রোগ্রামিং এর বৈশিষ্ট্য:

●সহজ সরল ভাষা। 

●ভাষাটি বিনামূল্যে ব্যবহারের উপযোগী। 

●ভাষাটি হস্তান্তরের উপযোগী, আপনি খুব সহজে ভাষাটি অন্যদের সাথে শেয়ার করতে পারবেন। ●পাইথনে আপনি অন্য প্রোগ্রামিং এর ভাষা ব্যবহার করতে পারবেন। পাইথন অন্য ভাষা গুলো বুঝতে সক্ষম এবং সেই ভাষার ব্যবহৃত কার্যক্রমটি পাইথন তার নিজের সিস্টেমে করতে সক্ষম।

●প্রোগ্রামারদের জন্য পাইথনে একটি গ্রন্থাগার আছে, যেখানে প্রোগ্রামাররা খুব সহজে কোডিংয়ের ভুলগুলি শুধরে নিতে পারে।

আরও পড়ুন- ভয়েজার মিশন কি। মানব সভ্যতার সবচেয়ে বড় মহাকাশ মিশন

আরও পড়ুন- Cigarette er bangla mane ki – সিগারেট এর বাংলা মানে কি

পাইথন প্রোগ্রামিং ভাষার ইতিহাস:

পাইথন ভাষাটির আবিষ্কারক ‘গুইডো ভ্যান রসম‘ যিনি নেদারল্যান্ডের বাসিন্দা। ১৯৮০ সালে ভাষাটির আবিষ্কার হলেও ১৯৯১ সালে পাইথনের আনুষ্ঠানিক লঞ্চ হয়। ১৯৯৪ সালে ভাষাটির সর্বপ্রথম ভাগ পাইথন-১ বাজারে প্রকাশ করা হয়, এরপর পাইথন-২ বাজারে আসে ২০০০ সালে, পাইথন-৩ ২০০৮ সালে ও এর সর্বশেষ ভাগ বাজারে ছাড়া হয় ২০১৭ সালে পাইথন-৩.৬ নামে। প্রোগ্রামিং ভাষাটির পাইথন নামের কারণ হলো, তখনকার দিনে অর্থাৎ ১৯৭৫ সালে একটি হাস্যকর নিবন্ধ বাজারে এসেছিল যার নাম ‘মন্টি পাইথন ফ্লাইং সার্কাস’। গুইডো ভ্যান রসম এই নিবন্ধটি থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে ভাষাটির নামকরণ পাইথন করেছিলেন।

পাইথন কোম্পানির একটি দল আছে যারা ভাষাটি কে পরিচালনা করে। ভাষাটি উইন্ডোজ, মেক, লিনাক্স কম্পিউটার গুলিতে কাজ করতে সক্ষম। বর্তমান যুগে এই প্রোগ্রামিং ভাষাটি প্রোগ্রামাররা সবচেয়ে বেশি ব্যবহার করে।

(Disclaimer: উপরে উল্লেখিত নিবন্ধটি সম্পূর্ণ জ্ঞান ও পড়াশুনার উদ্দেশ্য লেখা হয়েছে। আমাদের ওয়েবসাইট কখনোই কোনো অ্যাপ্লিকেশনের প্রচার করে না)

Leave a Reply