সোনাজয়ী তীরন্দাজ এখন স্টেশনে চা বিক্রি করে, দেখুন সেই কাহিনী

আজ যার কথা নিয়ে আলোচনা করব তার নাম দীপ্তি কুমারী একসময় তিনি সোনা, রুপো, ব্রোঞ্জ জয় করেছেন। তিনি ঝাড়খণ্ডের বাসিন্দা ধনুক ভেঙে যাওয়ায় স্বপ্ন ভঙ্গ হয় তার, কারণ নতুন ধনুক কেনার মত সামর্থ্য ছিল না তার পরিবারের। এমনকি সেই সময় তিনি বাঁশের তৈরি ধনুক দিয়ে রাজ্য এবং জাতীয় স্তরে বিভিন্ন টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ করেন।

২০০৬ সালে তিনি তীরন্দাজ প্রশিক্ষণ শুরু করেন এবং তারপর ২০১২ সালে ক্যাডেট বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে অংশগ্রহণ করেন। এই বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে ৬০ মিটারে সোনা, ৩০ মিটারের রূপ, ও ৫০ মিটারের ব্রোঞ্জ তিনি জয়লাভ করেন। এরপরই তার ধনুক ভেঙ্গে যায় দীপ্তি কুমারীর, এই ধনুক টি কেনার জন্য তার পরিবার স্বনির্ভর গোষ্ঠী থেকে টাকা লোন নিয়ে চার লক্ষ টাকা দিয়ে ধনুকটি কিনে দিয়েছিল। যা ভেঙে যাওয়ায় একপ্রকার স্বপ্নভঙ্গ হয় দীপ্তি কুমারীর।

আরো পড়ুন- জ্বলন্ত গাড়ি থেকে ঋষভ পান্থকে বার করেছিল কে? পড়ুন সেই কাহিনী

এরপর বাঁশের তৈরি ধনুক দিয়ে তিনি বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে থাকেন। কিন্তু এই বাঁশের তৈরি ধনুক দিয়ে আন্তর্জাতিক কোনো প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করা সম্ভব হয়নি। কারণ আন্তর্জাতিক মানের কোন প্রতিযোগিতায় বাঁশের তৈরি ধনুক গ্রহণযোগ্য নয়। এরপর তিনি পরিবারের নেওয়া লোনের টাকা পরিষদের জন্য কোন উপায় না দেখে স্টেশনে চায়ের দোকান খোলেন। তিনি সংবাদ মাধ্যমে বলেছেন ঝাড়খন্ড রাজ্য সরকারের কাছে চিনি চাকরির আবেদন করলেও এখনো পর্যন্ত সেখান থেকে কোন সাড়া পাওয়া যায়নি।

Leave a Reply