পৃথিবীর নামকরণ কে করেন

পৃথিবীর নামকরণ কে করেন: পৃথিবী, বিশ্ব, Earth, World এই নামগুলিতে আমরা প্রধানত আমাদের এই সুন্দর পৃথিবী কে সম্বোধন করে থাকি। ইংরেজি ভাষায় Earth ও World এই দুই নামে আমরা পৃথিবীকে ডেকে থাকি। কিন্তু এই নামগুলি আসলো কোথা থেকে কে?, এই নামের সৃষ্টিকর্তা?, কার মাথায় আসলো এই নাম প্রথম ইত্যাদি বিষয় জানার জন্য আজকের এই নিবন্ধ সম্পূর্ণ পড়ুন। আমাদের এই পৃথিবী সৃষ্টি হয়েছে প্রায় ৪.৫ বিলিয়ন বছর পূর্বে অর্থাৎ পৃথিবীর বর্তমান বয়স এখন ৪.৫ বিলিয়ন বছর।

আজকের এই নিবন্ধে আমরা পৃথিবীর আরেক নাম কি, পৃথিবীকে বাঁচতে কত বছর বাকি আছে, পৃথিবীর নামকরণ কে করেন, পৃথিবীর কেন্দ্রমন্ডল প্রধানত কি কি উপাদান দ্বারা গঠিত, পৃথিবী কত তম গ্রহ ইত্যাদি বিষয় জানতে পারবেন।

বিষয়পৃথিবীর নামকরণ
বিভাগআন্তর্জাতিক শিক্ষা
তথ্যসূত্রইন্টারনেট
সাল২০২৩

পৃথিবীর নামকরণ কে করেন ?

ইংরেজি শব্দ Earth নাম কি এসেছে জার্মান শব্দ ও ইংরেজি শব্দ থেকে, যে শব্দ দুটি হলো “eor(th)e/ertha” ও “erde”, এই দুটি শব্দের অর্থ “ভূমি, মাটি” বা ইংরেজিতে “গ্রাউন্ড” বলা হয়ে থাকে। মানে তো আমরা বুঝতেই পারলাম, কিন্তু পৃথিবী বা Earth নামটি কার দ্বারা সৃষ্টি হয়েছে?। এর উত্তর অবশ্য বিজ্ঞানীদের কাছে এখনো অজানা তবে একটি বিষয় যা আপনাদের জানা দরকার। পৃথিবী ছাড়া সৌরজগতের অন্যান্য গ্রহগুলির নাম গ্রিক বা রোমান দেবী দেবতার নামে রাখা হয়েছে যে রকম রোমান রাজাদের নামে Jupiter, রোমান কৃষি দেবতার নামে Saturn, রোমান যুদ্ধের দেবতার নামে Mars ইত্যাদি। এই কারণে প্রাচীন ভূতাত্ত্বিকবিদ ও গবেষকদের অনুমান পৃথিবীর নামকরণ রোমানদের দ্বারাই সৃষ্টি। তবে এর প্রমাণ এখনো পর্যন্ত পাওয়া যায়নি।

এখন পৃথিবীর বয়স কত ?

এছাড়া বর্তমানে পৃথিবীর বয়স কত প্রশ্নটি আপনাদের মনে হতেই পারে, গবেষণা ও তথ্য অনুসারে বর্তমানে পৃথিবীর বয়স ৪.৫ বিলিয়ন বছর। এই তথ্য যা আজকে আমরা ইন্টারনেটে দেখতে পাচ্ছি সেটি তৈরি হয় ১৯৫০ সালে এক গবেষণার উপর ভিত্তি করে পৃথিবীর বয়স নির্ধারণ করা হয়েছে। পৃথিবীর বয়স সংক্রান্ত বিষয় সম্পূর্ণ পড়ার জন্য এই নিবন্ধটি পড়ুন যেখানে বিশদে কিভাবে পৃথিবীর বয়স নির্ধারণ করা হয়েছে সেটির উল্লেখ আছে। সংক্ষেপে যদি বলা যায় তবে পৃথিবীতে প্রাপ্ত আজ পর্যন্ত সবচেয়ে পুরনো পাথরের গবেষণা করে পৃথিবীর বয়স নির্ধারণ করা হয়েছে, তবে এর পেছনে আছে একটি রহস্য।

পৃথিবীর বর্তমান জনসংখ্যা কত?

আমরা সবাই জানি পৃথিবীর জনসংখ্যা প্রত্যেক বছর বৃদ্ধি পাচ্ছে। বর্তমানে পৃথিবীর মোট জনসংখ্যা হল প্রায় ৮০০ কোটি। ২০১০ সালে পৃথিবীর জনসংখ্যা ছিল ৬.৯ বিলিয়ন, ২০০০ সালে পৃথিবীর জনসংখ্যা ছিল ৬.১ বিলিয়ন, ১৯৯০ সালে পৃথিবীর জনসংখ্যা ছিল ৫.২ বিলিয়ন, ১৯৮০ সালে পৃথিবীর জনসংখ্যা ছিল ৪.৪ বিলিয়ন, ১৯৫১ সালে পৃথিবীর জনসংখ্যা ছিল ২.৫ বিলিয়ন। পৃথিবীর জনসংখ্যার সম্বন্ধে বিশদে জানতে Read More, অপশন এ ক্লিক করুন যেখানে আপনারা দেশ অনুযায়ী পৃথিবীর জনসংখ্যা, ধর্ম অনুযায়ী বয়স অনুসারে শিক্ষা অনুসারে মোট জনসংখ্যা কত রয়েছে বর্তমানে এগুলো জানতে পারবেন, Read More

Q&A: পৃথিবীর নামকরণ কে করেন

পৃথিবী কত তম গ্রহ?

পৃথিবী সূর্যের তিন নম্বর গ্রহ কারণ সৌরজগতের পৃথিবী সূর্যের কক্ষপথে বুধ, শুক্র গ্রহের পর অবস্থান করে।

পৃথিবীর আরেক নাম কি?

বিশ্ব বা নীল গ্রহ নামে আমরা পৃথিবীতে দেখে থাকি এছাড়া ইংরেজিতে Earth, World নামে পৃথিবীকে ডাকা হয়।

পৃথিবীকে বাঁচতে কত বছর বাকি আছে?

সূর্য এখনো ৭.৫ বিলিয়ন বছর এভাবেই চলতে থাকবে অর্থাৎ সূর্য যতদিন আছে পৃথিবীর ততদিন আছে।

পৃথিবীর কেন্দ্রমন্ডল প্রধানত কি কি উপাদান দ্বারা গঠিত?

পৃথিবীর অভ্যন্তরে নিকেল ও লোহার মতো উপাদান দ্বারা গঠিত।

Leave a Reply