AirCar Prototype-1, প্রথমবার আকাশে উড়লো চার চাকার গাড়ি

পৃথিবীতে প্রতিদিন কোন না কোন ভাবে প্রযুক্তির বিকাশ ঘটে চলেছে। একটা সময় যা শুধু কল্পনাতেই সীমাবদ্ধ ছিল আজ তা বাস্তবায়িত। এরকমই আরো একটি কল্পনা থেকে বাস্তবে রূপান্তরিত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে সম্প্রতি। এন্টার সিটি উড়ান সম্পন্ন করেছে প্রথম কোনো চারচাকা গাড়ি। যে গাড়ি একাধারে প্লেন আবার অন্যদিকে একটি স্পোর্টস কার।

AirCar Prototype

হ্যাঁ ঠিকই শুনেছেন, Nitra আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ওড়ানো হয়েছে এই স্পোর্টস কার বা এয়ারকার কে। এই অত্যাধুনিক গাড়িটি প্রায় ৩৫ মিনিট আকাশে উড়েছে। Nitra আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ওড়ানোর পর এটি অবতরণ করানো হয় স্লোভাকিয়ার রাজধানী ব্রাতিসলাভা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে

এবার জেনে নেওয়া যাক এই অত্যাধুনিক গাড়িটি সম্পর্কে। শুনলে আশ্চর্য হবেন, গাড়িতে থাকা একটি বোতাম ক্লিক এর সাহায্যে এটিকে এয়ারক্রাফট থেকে স্পোর্টস কার এ বদলানো সম্ভব। এয়ারক্রাফট থেকে স্পোর্টস কারের বদলাতে মাত্র তিন মিনিট সময় লাগে এই গাড়িটির। অত্যাধুনিক এই উড়ন্ত-গাড়ির নির্মাতা প্রফেসর স্টিফেন ক্লেইন এবং গাড়িটির কো-ফাউন্ডার হলেন অ্যান্টোন জ্যাজাক। আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণের পর তারা দুজনেই স্পোর্টস গাড়িটি নিয়ে পৌছে যান ব্রাতিসলাভা ডাউনটাউনে।

অত্যাধুনিক গাড়িটির নাম AirCar Prototype-1। এই এয়ার কারে রয়েছে প্রায় ১৬০ হর্সপাওয়ারের একটি বিএমডব্লিউ ইঞ্জিন। সাথে রয়েছে একটি ব্যালিস্টিক প্যারাসুট এবং প্রপেলার। AirCar টি সঠিকভাবে কাজ করছে কিনা তা দেখার জন্য ৪০ ঘণ্টার একটি ফ্লাইট টেস্ট নেওয়া হয়। যেখানে বিভিন্ন কঠিন পরীক্ষার মধ্য দিয়ে যেতে হয় গাড়িটিকে। প্রথমত ৪৫ ডিগ্রি টার্ন এছাড়াও সর্বোচ্চ উচ্চতা এবং সর্বোচ্চ গতি পরীক্ষা করা হয়েছিল গাড়িটির। গাড়িটির প্রায় ৮২০০ ফুট উঁচু পর্যন্ত উঠতে সক্ষম হয়েছিল এবং সর্বোচ্চ গতি ছিল প্রায় ১৯০ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টায়। প্রতিটি টেস্ট গাড়িটি সফলভাবে সম্পন্ন করে।

আরো পড়ুন-Waveforms ফিচার যুক্ত হতে চলেছে হোয়াটসঅ্যাপ ভয়েস মেসেজে, জানুন বিস্তারিত

বিভিন্ন সূত্র মারফত পাওয়া খবর অনুযায়ী এই গাড়িটির একটি দ্বিতীয় মডেল তৈরি করা হবে। যার নাম দেয়া হয়েছে AirCar Prototype-2। এই দ্বিতীয় মডেলটি তে বিএমডব্লিউ এর ৩০০ হর্সপাওয়ার ইঞ্জিন থাকার সম্ভাবনা রয়েছে। EASA CS-23 এয়ারক্রাফট সার্টিফিকেশন এবং এমওয়ান রোড পারমিট থাকবে এই মডেলটির সাথে। দ্বিতীয় মডেল অর্থাৎ AirCar Prototype-2 এর ক্ষেত্রে গতিবেগ হতে পারে প্রায় ৩০০ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টায়। এক কথায় বলতে গেলে এ যেন অবাস্তবকে বাস্তবায়ণ করা।

Leave a Reply