বিশ্ব জুড়ে এমন কয়েকজন মানুষ, যারা রাতারাতি খ্যাতির শিখরে পৌঁছেছিলেন

বিশ্বজুড়ে প্রায় বেশিরভাগ মানুষই তাদের দক্ষতা ও প্রতিভার উপর নির্ভর করে অক্লান্ত পরিশ্রমে খ্যাতি অর্জন করেছেন। তাদের প্রয়োজন হয়নি কোন সংক্ষিপ্ত পথের। সেটা অবশ্য কিছুদিন আগে কার কথা। কিন্তু বর্তমান সময়টি হল ইন্টারনেটের সময়, সামাজিক মাধ্যমের যুগ। সেকারণে এই সামাজিক মাধ্যম গুলোর হাত ধরে রাতারাতি খ্যাতি অর্জন করাটা খুব সহজ একটি পন্থা। আজ এমন অনেকেই আছেন যারা সামাজিক মাধ্যমগুলো সাহায্যে অকল্পনীয়ভাবে এতটাই খ্যাতি অর্জন করেছেন যা তারা কখনও কল্পনাও করতে পারেননি। তবে এই পথে খ্যাতি অর্জন করাটা যেমন সহজ, ঠিক তেমনি ভাবে খেতে শিখর থেকে এক ধাপ নিচে নেমে আসা টাও সহজ। চলুন দেখে নেওয়া যাক বিশ্বজুড়ে এমন কয়েকজন মানুষদের, যারা অবিশ্বাস্য ভাবে রাতারাতি খ্যাতির চরম শিখরে পৌঁছে ছিলেন। 

নিকি লিবার্ট: 

নিকি লন্ডন নিবাসী অল্প বয়সের একজন নির্মাণ কর্মী ছিলেন। সেই লন্ডনের একজন ছাত্রী তার সামাজিক নেটওয়ার্কের একাউন্টে একদিন নিকির ছবি পোস্ট করেন। সেই ছাত্রী জানিয়েছে তিনি যখন আমস্টার্ডামে যান সেখানে গিয়ে তিনি নিকির সাথে পরিচিত হন। তার ছবি সামাজিক মাধ্যমগুলোতে ছড়িয়ে পড়ার পরে তার সৌন্দর্যের ব্যাপক প্রশংসা করে সকলে। শেষ পর্যন্ত তার এই ছবিটির কারণে এলিট মডেলিং এজেন্সি তার সাথে চুক্তিবদ্ধ হয়। তার জীবন পাল্টে যায় এই মেয়েটির তোলা ছবিটির জন্য। 

আরও পড়ুন: আমাজন অরণ্যের রহস্য, আদিবাসী, অববাহিকা, জীবজন্তু ও উদ্ভিদ

ব্যাডভি উস্কল: 

প্রাপ্তবয়স্ক ব্যাডভি রাতারাতি অনেক মানুষের মন জয় করেছিলেন; যখন তার নাতনি একটি ছবি সামাজিক নেটওয়ার্ক সাইট ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করে। বর্তমান ইনস্টাগ্রামে তার ফলোয়ার ৩ মিলিয়নেরও বেশি ছাড়িয়ে গেছে। খ্যাতি অর্জন করবার পর থেকে তিনি তার ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডেলে প্রতিদিন সক্রিয় থাকেন। তার নাচ এবং প্রতিদিনের নিজস্বী পরিবর্তন ফলোয়ারদের মাতিয়ে রাখে। নিয়মিত টক শোতে অংশগ্রহণ করেন প্রাপ্তবয়স্ক মহিলা ব্যাডভি। 

নুস্রেট গোকি

গোকি একজন তুর্কি শেফ। তিনি সামাজিক মাধ্যমগুলোতে খুব তাড়াতাড়ি জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন তাঁর মাংস রান্না করা ভিডিও গুলোর মাধ্যমে। খুব আবেগের সাথে তার মাংস রান্নার ভিডিও ইনস্টাগ্রামে সকলের সামনে আসার পর তিনি খ্যাতি অর্জন করতে থাকেন। লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিওর মত বড় তারকারা তার আবেগী মাংস রান্না দেখতে আসেন। বর্তমানে তার ইনস্টাগ্রামে ফলোয়ার ৭ মিলিয়ন এরও বেশি।

ইমানুয়েল ফ্যাসানো: 

খ্যাতি কখন, কিভাবে, কার পদতলে চুম্বন করবে তা কেউ কখনো বলতে পারে না। ঠিক এমনটাই ঘটেছিল এই তরুণ সংগীতশিল্পীইমানুয়েল ফ্যাসানোর সঙ্গেও। তিনি একদিন ট্রেন ধরবার জন্য স্টেশনে অপেক্ষা করছিলেন। সেখানে অপেক্ষা করা ছাড়া আর কিছুই করার ছিলনা। তখন তিনি স্টেশনের ভেতরে দাঁড়িয়ে পিয়ানো বাজানো শুরু করেন। সৌভাগ্যক্রমে তার এই অসাধারণ প্রতিভা একজন সঙ্গীত প্রযোজকের নজরে আসে। তিনি ইমানুয়েলের ভিডিও করে সেটি সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে দিতে সারা বিশ্ব থেকে সংগীতপ্রতিভার অসামান্য জনপ্রিয়তা ছড়িয়ে পড়তে থাকে। তার জীবনকে সম্পূর্ণরূপে বদলে দেয় এই একটি ভিডিও। 

আরশাদ খান: 

জীবন কীভাবে পাল্টে যায় তা সকলেরই অজানা। ঠিক এমনিভাবে চা বিক্রেতা থেকে বর্তমানে মডেল; খ্যাতির শিখরে আজ আরশাদ খান। ইসলামাবাদের ১৮ বছর বয়সী চা বিক্রেতা আরশাদ এর নীল চোখ ও সৌন্দর্যে মুগ্ধ হয়ে একজন ফটোগ্রাফার তার একটি ছবি তুলে ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করেন। ছবিটি সামাজিক মাধ্যমে ছাড়ার সঙ্গে সঙ্গে হাজার হাজার লাইক পড়তে থাকে সেই ছবিতে। এত জনপ্রিয়তার কারণে বর্তমানে তিনি একটি মডেলিং এজেন্সি তে কাজ করছেন। তার স্বপ্ন ভবিষ্যতে চলচ্চিত্র তারকা হিসেবে ক্যারিয়ার গড়ে তোলা।

Leave a Reply