মহাকাশ ভ্রমণের পরবর্তী অভিজ্ঞ্যতা ভাগ করে নিলেন অ্যামাজনের CEO-জেফ বেজোস

সম্প্রতি মহাকাশ থেকে ঘুরে আসলেন পৃথিবীর অন্যতম ধনী ব্যক্তি তথা অ্যামাজনের প্রাক্তন CEO জেফ বেজোস। আর প্রথমবার মহাকাশ ভ্রমণের অভিজ্ঞতাই ভাগ করে নিলেন তিনি। বেশ কয়েকদিন ধরে পরিকল্পনা করছিলেন এই অভিযানের। যে অভিযান শুরুর আগে তিনি জানিয়েছিলেন ছোটবেলার স্বপ্ন পূরণ হতে চলেছে তার। এবার সেই ছোটবেলার স্বপ্ন পূরণের অভিজ্ঞতা তিনি নিজের মুখে জানালেন, তবে সেই অভিজ্ঞতা ভাগ করে নেওয়ার আগে তার নিজস্ব সংস্থার সাথে যুক্ত প্রত্যেক কর্মীকে এবং ক্রেতাকে এই সফরের জন্য ধন্যবাদ জানিয়েছেন তিনি।

অ্যামাজনের প্রাক্তন সিইও জেফ বেজোস গত ২০ জুলাই তার নিজস্ব সংস্থা ব্লু-অরিজিন দ্বারা নির্মিত একটি স্পেসক্রাফটে চড়ে মহাকাশের উদ্দেশ্যে পাড়ি দিয়েছিলেন। তার সঙ্গে ছিল তার নিজের ভাই মার্ক, ১৮ বছরের একজন তরুণ এবং একজন প্রাক্তন বৃদ্ধা পাইলট। ব্লু-অরিজিন দ্বারা নির্মিত New Shepard স্পেসক্রাফটে করে পৃথিবীর ভূপৃষ্ঠ থেকে প্রায় ১০০ কিলোমিটার উচ্চতা পর্যন্ত উঠেছিলেন জেফ বেজোস এবং তার সঙ্গীরা। মহাকাশের এই ভ্রমণকে তার জীবনের সেরা দিন বলে আখ্যাও দিয়েছেন তিনি।

অভিযানের পরবর্তী অভিজ্ঞতা ব্যক্ত করতে জেফ বলেন “আমার সাংঘাতিক প্রত্যাশা ছিল আর সবকিছুই সাফল্যের সঙ্গে পূরণ হয়েছে”। তার কথার মধ্য দিয়ে বারবারই উঠে এসেছে পৃথিবীর অপরূপ সৌন্দর্যের কথা যা কেবলমাত্র মহাকাশ থেকেই প্রত্যক্ষ করা সম্ভব। তিনি এও বলেন এই সৌন্দর্যের বর্ণনা দেওয়া তার পক্ষে সম্ভব নয়। তাদের এই মহাকাশ অভিযানের একটি ভিডিও টুইটারে ভাইরাল হয়েছে, যেখানে দেখা গিয়েছে জিরো গ্রাভিটিতে গিয়ে চারজন সদস্যকে স্পেসক্রাফট এর ভিতর ভেসে বেড়াতে।

আরো পড়ুন-মহাকাশ যাত্রায় জেফ বেজোসকে টেক্কা দিতে এগিয়ে এলেন আরো এক কোটিপতি

জেফ বেজোস এর অভিজ্ঞতা অনুযায়ী জিরো গ্রাভিটি বেশ আনন্দের এবং সম্পূর্ণ আলাদা এক অভিজ্ঞতা। যে অভিজ্ঞতা কখনোই পৃথিবীতে থেকে পাওয়া সম্ভব নয়। আর সবথেকে আশ্চর্যের অনুভুতি হল পৃথিবীর বাইরে থেকে পৃথিবী কে দেখা, যে অভিজ্ঞতা ভাষায় প্রকাশ করা একপ্রকার অসম্ভব। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, জেফ বেজোস এবং তার তিনজন সঙ্গী অর্থাৎ মোট চারজন পৃথিবী থেকে ১০০ কিলোমিটার উচ্চতায় Karman Line বা এজ অফ স্পেস পার করার পর ১০ মিনিট সেখানে ছিলেন।

“মহাকাশ ভ্রমণের পরবর্তী অভিজ্ঞ্যতা ভাগ করে নিলেন অ্যামাজনের CEO-জেফ বেজোস”-এ 1-টি মন্তব্য

Leave a Reply