রাজস্থানের মন্দিরের ভিত্তি নির্মাণের পূর্বে উৎসর্গ করা হল ১১ হাজার লিটার দুধ,ঘি,দই

মন্দিরের ভিত্তি নির্মাণের পূর্বে উৎসর্গ করা হল ১১ হাজার লিটার দুধ

হিন্দু দেবতা দেবনারায়নের মন্দিরের ভিত্তি নির্মাণের পূর্বে দেবতা কে উৎসর্গ করে মাটিতে ঢালা হয়েছে ১১ হাজার লিটার দুধ, ঘি এবং দই। যেগুলির মধ্যে এক কুইন্টাল ঘি, ১৫০০ লিটার পরিমাণ দই, বাকিটা ছিল দুধ। এর মূল্য বর্তমানে প্রায় দেড় লক্ষ টাকার কাছাকাছি। এটি রাজস্থানের ঝালওয়ার জেলার বাতলাই অঞ্চলের ঘটনা।এই ভীত পুজোয় ভিড় জমিয়েছেন অধিকাংশ এলাকাবাসী। বড় বড় পাত্র থেকে প্রচুর মানুষ ঢালছেন দুধ, সঙ্গে চলছে পূজোর মন্ত্র পাঠ। 

পুরনো ঐতিহ্যের কথা মাথায় রেখেই এই সমস্ত আয়োজন করা হয়েছে এমনটাই জানান ওই মন্দিরের মুখপাত্র রামলাল গুজ্জর। রামলাল গুজ্জর জানান দুধ এবং দুগ্ধজাত সামগ্রী নিবেদন করার মতো এই ধরনের অনুষ্ঠান আগেও কয়েকবার হয়েছে। তারা সেই ঐতিহ্যকেই রক্ষা করছে। তাদের মতে এই বিপুল পরিমাণে দুগ্ধজাত পণ্য একেবারেই নষ্ট নয় বরং তা দিয়ে তারা দেবতা দেব নারায়ন কে তুষ্ট করছেন। তুষ্ট হয়ে ঈশ্বর তাদের গবাদি পশুদের রক্ষা করবে। 

আরও পড়ুন – ভারতের 5টি বিষহীন সাপ। জেনে নিন ভারতের কয়েকটি বিষহীন সাপের ব্যাপারে। 

জানা গেছে এই সমস্ত দুধ, দই এবং ঘি গুজ্জর সম্প্রদায়ের লোকেরা উদার হস্তে দিয়েছ। এই বিপুল পরিমাণে দুধ, দই, ঘি ঢালার ঘটনার প্রতিবাদ করেছে অনেকে। অনেকের দাবি এই দুধ, ঘি ভগবানের উদ্দেশ্যে উৎসর্গ করতে গিয়ে অপচয় না করে দরিদ্র মানুষকে দেওয়া হলে ভগবান তুষ্ট হত। 

অন্যদিকে রামলাল গুজ্জর বলেছেন দুগ্ধজাত পণ্য ব্যবহার করার প্রচলন তাদের সম্প্রদায়ে বাধ্যতামূলক নয়। তাদের এই নিবেদন দেবতার থেকে পাওয়া সম্পদের তুলনায় কিছুই নয় বলে তারা জানিয়েছে। তারা আরও জানিয়েছে প্রায় এক কোটি টাকা ব্যায়ে দেবনারায়নের মন্দির নির্মাণ দু’বছরের মধ্যে সম্পন্ন হবে। 

Leave a Reply