ইজিপ্টের এক মমির সিটি স্ক্যান করা হলো। কি হলো তারপর

মমি নামটা শুনলেই মনের মধ্যে অদ্ভুত এক কৌতুহলের জন্ম নেয়। জানতে ইচ্ছা হয় কাপড়ে মোড়া হাজার বছরের পুরোনো বস্তু গুলির মধ্যে কি রয়েছে। প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের ‘মিশর রহস্য‘ সিনেমাটি হয়তো অনেকেই দেখেছেন। বিভিন্ন সময়ে কোন নতুন মমির সন্ধান পেলে তা সংবাদ মাধ্যমে আমরা দেখতে পাই। এবার সেরকমই একটি মমির সিটি স্ক্যান করা হলো।

ইতালির একটি হাসপাতালে ইজিপ্ট যুগের একটি মমির সিটি স্ক্যান করা হলো। বার্গেমোর সিভিক অ্যার্কিওলজিক্যাল জাদুঘর থেকে মমি টিকে নিয়ে আসা হয়েছে। জানা গিয়েছে এই মমিটি একজন পুরোহিতের, মমিটি উদ্ধারের সময় তার উপর লেখা ছিল ‘ভগবানের দুত’। এছাড়া মমিটি প্রায় ৩ হাজার বছরের পুরোনো। মমিটি নিয়ে বিশদে আরো গবেষণা করার জন্য এই স্ক্যান করা হবে।

আরো পড়ুন- এবার কলকাতা শহর থেকে ঢাকা শহর পৌঁছতে মাত্র ৩ ঘন্টা সময় লাগবে

ইতালিতে সিটি স্ক্যান এর মাধ্যমে এই মমিটির শরীরের পুনর্গঠন করা হবে। ফলে এর জন্ম ও মৃত্যু কাল সম্পর্কে আরও সঠিক তথ্য উপলব্ধ হবে। সেই সময়কার মিশরের পুরোহিতদের ভগবানের দূত বলা হত, সেই কারণে মমিটির উপরে এই কথাটি লেখা ছিল যাতে ভবিষ্যতে সহজে শনাক্তকরণ করা যায়। গবেষকদের মতে এই মমিটি প্রায় খ্রিস্টপূর্ব ৯০০ অব্দের হবে।

“ইজিপ্টের এক মমির সিটি স্ক্যান করা হলো। কি হলো তারপর”-এ 2-টি মন্তব্য

Leave a Reply