সোনার কুকুরের মূর্তি উন্মোচন হলো তুর্কমেনিস্তানে। আলবাই কুকুর কি?

সোনার কুকুরের মূর্তি উন্মোচন হলো তুর্কমেনিস্তানে:

তুর্কমেনিস্তান মধ্য এশিয়ার একটি দেশ, ইরান, আফগানিস্তান, কাজাকিস্তান ও ক্যাস্পিয়ান সাগরের সীমানা বরাবর এই দেশটি অবস্থিত। তুর্কমেনিস্তানের রাষ্ট্রপতি পোষ্য কুকুরদের ভালবাসতেন তার বাড়িতে অনেক পোষ্য কুকুর রয়েছে। একবার ভাবুন আপনার বাড়িতে যদি পোষ্য কুকুর থাকতো আপনি কি করতেন, কুকুরটির সাথে খেলতেন, সারাদিন তার সাথে সময় কাটাতেন কিন্তু তুর্কমেনিস্তানের রাষ্ট্রপতি তার পোষ্য কুকুরটির একটি বিশাল মূর্তি তৈরি করেছে। সেটাও আবার সম্পূর্ণ সোনার মূর্তি, মূর্তিটি তুর্কমেনিস্তানের রাজধানী আশগাবাতের একটি রাস্তার মাঝে অবস্থিত।

সামাজিক মাধ্যম টুইটারে একটি ভিডিওতে আলবাই কুকুরটির মূর্তি উন্মোচনের মুহূর্তটি দেখা যাচ্ছে। মূর্তির উদযাপন অনুষ্ঠানে স্বয়ং তুর্কমেনিস্তানের রাষ্ট্রপতি উপস্থিত ছিলেন। মূর্তিটির নিচে কিছু এলিডি টিভি লাগানো হয়েছে যেখানে কুকুরটির খেলাধুলার কিছু মুহূর্ত দেখানো হচ্ছে। তুর্কমেনিস্তান আলবাই কুকুর গুলিকে জাতীয় গর্ব রূপে বর্ণনা করেছে। কুকুরটির মূর্তি হয়তো তুর্কমেনিস্তানের জাতীয় ঐতিহ্য গুলির মধ্যে সামিল করা হবে। জায়গাটি ভবিষ্যতে দর্শনার্থীদের জন্য ভ্রমণের একটি জায়গা হয়ে উঠবে বলে মনে করা হচ্ছে। কুকুর এবং ঘোড়া তুর্কমেনিস্তানের একটি অন্য পর্যায়ে গণ্য করা হয়। সেখানকার মানুষ দুটি প্রাণীকে জাতির গর্ব হিসেবে স্থান দিয়েছে।

তুর্কমেনিস্তান একটি প্রাকৃতিক গ্যাসের ভান্ডার। সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক গ্যাসের পরিপূর্ণ দেশটির মোট জনসংখ্যার প্রায় ৯০ শতাংশ লোক সরকারি কর্মচারী। সরকারি দেশের সমস্ত বিভাগ গুলোকে পরিচালনা করে। দেশটিতে দারভাজা নামে একটি গ্যাস চেম্বার রয়েছে মরুভূমির মাঝে যা খুবই জনপ্রিয় একটি ভ্রমণের স্থান। ৬০ লক্ষ জনসংখ্যা বিশিষ্ট দেশটির রাজধানীর ৮০ শতাংশ ঘরবাড়ি সাদা মার্বেল পাথরের তৈরি। তুর্কমেনিস্তান দেশটি শৌখিনতায় মোরা পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন একটি দেশ।

আরো পড়ুন- পৃথিবীর সবথেকে বিষাক্ত সাপ ব্ল্যাক মাম্বা

আলবাই কুকুর কি:

আলবাই কুকুর হল একটি খুবই শক্তিশালী প্রজাতির কুকুর। মধ্য এশিয়ার দেশগুলোতে বিশেষত রাশিয়ায় এই কুকুর সবচেয়ে বেশি দেখাযায়। কুকুরটি প্রধানত শীতপ্রধান দেশের কুকুর, পাহাড়ি অঞ্চলে এই ধরনের কুকুর বেশি দেখা যায়। এদের ওজন ৪০ থেকে ৫০ কেজি ও ৬০ থেকে ৭০ সেন্টিমিটার দীর্ঘ হতে পারে।বেশিরভাগ কুকুরগুলি সাদা হলেও কালো ও ধূসর বর্ণের আলবাই কুকুর রয়েছে। বিশ্বের হিংস্র কুকুর গুলির মধ্যে এটি একমাত্র প্রজাতি যারা নেকরে বাঘের সঙ্গে লড়তে সক্ষম। 

বিশেষত পাহাড়ি অঞ্চলে যাদের বাড়ি এবং যেসব বাড়িতে ছাগল ও ভেড়া প্রতিপালন করা হয়, তারা এই ধরনের কুকুর পোষ্য হিসেবে রাখে। কুকুরটির খাবারের পরিমাণ যথেষ্ট বেশি দরকার হয়, কোন আলবাই কুকুরকে যদি আপনি কিনতে চান তবে প্রায় ভারতীয় টাকায় ১ লক্ষের উপর এর মূল্য দিতে হতে পারে। কুকুরটি হিংস্র প্রজাতির , সেই কারণে সম্পূর্ণ অনুশীলনের মধ্য দিয়ে কুকুরটিকে বড় করতে হয়। না হলে ভবিষ্যতে আপনার সমস্যা হতে পারে। কুকুরটি গরম একেবারে সহ্য করতে পারে না, শীতপ্রধান অঞ্চলেই কুকুরটি বড় হতে পারে। এই আলবাই প্রজাতিতে পাহারাদার, লড়াই করা ও শৌখিন কুকুর রয়েছে। পাহারাদার ও লড়াই এর কুকুর গুলি সবচেয়ে বেশি হিংস্র হয়। তুর্কমেনিস্তানে কুকুর দের লড়াইয়ের একটি প্রতিযোগিতা হয়, যেখানে আলবাই কুকুরদের সংখ্যাই বেশি থাকে।

Leave a Reply