কেন্দ্রের নয়া পন্থা, ভুয়ো খবর ভাইরাল করলেই হতে পারে হাজতবাস

সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহার প্রতিনিয়ত বেড়েই চলেছে এবং এই মাত্রাতিরিক্ত সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহার মাঝেমধ্যে এমন অনেক ভুয়ো খবর ছড়িয়ে দেয় যা ডেকে আনে ভীষণ বিপদ। ভুয়ো খবরগুলি মেসেজের মাধ্যমে ফরওয়ার্ডের পর ফরওয়ার্ড হতে থাকে যা পরবর্তীতে রীতিমতো ভাইরাল হয়ে যায়, আর এই ভুয়ো খবর গুলি মানুষ সত্যি ভেবে নেয়। যার প্রমাণ সাধারণ মানুষ বহুবার প্রত্যক্ষ করেছে। যে কারণে এবার কঠোর পদক্ষেপ নিয়েছে কেন্দ্র।

ভুয়ো খবর ভাইরাল করলেই হতে পারে হাজতবাস

সোশ্যাল মিডিয়া গুলির উপর জারী করা কেন্দ্রের নয়া পন্থা ভুয়ো মেসেজকে আর ভাইরাল হতে দেবে না। যদি কেউ ভুয়া মেসেজ পাঠিয়ে ভাইরাল করবার চেষ্টা করে তবে তার উপরে নেয়া হবে কঠোর পদক্ষেপ। কেন্দ্রে তরফ থেকে জানানো হয়, যে সমস্ত সোশ্যাল মিডিয়া সংস্থাগুলিতে ৫০ লক্ষের উপরে ব্যবহারকারীরা আছে তাদের সকলকেই কেন্দ্রের এই নীতি মেনে চলতে হবে

আরো পড়ুন- মহাকাশে ভাসমান রেস্তোরা, ২০২৭ সালের মধ্যেই শুরু হতে চলেছে এই রেস্তোরা

সোশ্যাল মিডিয়া হলো একটি উন্মুক্ত প্রচারের মাধ্যম। যেখানে যে কোনো ব্যবহারকারী তাদের মন্তব্য অথবা মেসেজ গুলো পাঠানোর স্বাধীনতা পায়। তবে এমন অনেক ঘটনাই ঘটেছে যেখানে ব্যবহারকারীদের পাঠানো একটি ভুয়া মেসেজ রাতারাতি ভাইরাল হয়েছে এবং বিক্ষোভ ও দাঙ্গার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। আর এটিকে বন্ধ করাই কেন্দ্রের নতুন নীতির প্রধান উদ্দেশ্য।

কেন্দ্রের নয়া পন্থা

কেন্দ্রের নয়া পন্থা অনুযায়ী, পরবর্তীতে এই ধরনের মেসেজ এর লেখক কে হাতেনাতে ধরতে পারবে সাইবার পুলিশ। আর এটিতে সাহায্য করবে হ্যাস কনস্ট্যান্ট (HASH CONSTANT)। হ্যাস কনস্ট্যান্ট হল এমন এক অ্যালগরিদম যা কোন মেসেজ পাঠানোর সাথে সাথে সেটির সঙ্গে জুড়ে যায় একটি বিশেষ গাণিতিক সংখ্যা, আর এই বিশেষ গাণিতিক সংখ্যা কে বলা হয় হ্যাস ধ্রুবক

ব্যবহারকারীদের দ্বারা পাঠানো কোন মেসেজ যখন বারবার ফরওয়ার্ড হতে থাকে তখন সেই বিশেষ গাণিতিক সংখ্যাটির সামান্য পরিবর্তন হলেও ধ্রুবক এর মত অপরিবর্তিত থাকবে। যার ফলে ভাইরাল হওয়া মেসেজটির হ্যাস কনস্ট্যান্টটি সোশ্যাল মিডিয়া সংস্থা চাইলে খুঁজে বার করতে পারবে এবং সাইবার পুলিশ চাইলেই মেসেজটি প্রথম কোথা থেকে ভাইরাল হয়েছে এবং কে পাঠিয়েছে তা সহজে খুঁজে পাবেন।

কেন্দ্রের এই নয় নীতিতে প্রশ্ন করেছে অনেকে। মেসেজে এই হ্যাস কনস্ট্যান্ট যুক্ত হওয়াতে প্রাইভেসি নিয়ে কোনো সমস্যা হবে কি না সে প্রশ্নের উত্তরে একজন আধিকারিক জানান, এটি কেবল ভাইরাল মেসেজ গুলিতেই ব্যবহার করা হবে যা এমনিতেই অনেক মানুষ দেখে ফেলেছেন। এবং বিনা কারণে সাধারণ মেসেজ ট্রেসিং করার কোনো প্রশ্নই ওঠে না। কেন্দ্রের গ্রহণ করা এই নয়া নীতি আগামী দিনে ভুয়ো খবরের কারণে হওয়া দাঙ্গা ও বিবাদ বন্ধ করতে যথেষ্ট সহায়তা করবে।

“কেন্দ্রের নয়া পন্থা, ভুয়ো খবর ভাইরাল করলেই হতে পারে হাজতবাস”-এ 1-টি মন্তব্য

Leave a Reply