মহাকাশে ভাসমান রেস্তোরা, ২০২৭ সালের মধ্যেই শুরু হতে চলেছে এই রেস্তোরা

অ্যাডভেঞ্চারের শক প্রায় প্রত্যেকটি মানুষেরই থাকে। তবে কখনো মহাকাশে ভেসে পৃথিবী দেখতে দেখতে রেস্তোরাঁয় খাওয়ার কথা ভেবেছেন? হ্যাঁ! এমনটাই সত্যি হতে চলেছে আগামী ২০২৭ সালের মধ্যে। যেটি হবে প্রথম মহাকাশে ভাসমান রেস্তোরা। শুধু তাই নয়, রেস্তোরাঁর সাথেই থাকছে লাক্সারি হোটেল রুম, বার, জিম।

মহাকাশে ভাসমান রেস্তোরা

মহাকাশে ঘুরে বেড়ানোটা এখনো পর্যন্ত শুধুমাত্র নভোচারীদের মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল। কিন্তু এই দিন হয়তো শেষ হতে চলেছে খুব শীঘ্রই। পৃথিবীর বাইরে একেবারে মহাকাশে প্রথম রেস্তোরাঁ তৈরির স্বপ্ন পূরণ হতে চলেছে আর ছয় বছরের মধ্যেই। যেখানে হলিউডের সিনেমার মতোই আপনিও মহাকাশে রেস্তোরাঁর আনন্দ নিতে পারবেন। অভিজ্ঞতা হতে চলেছে একেবারে আলাদা, এখনো পর্যন্ত যা কেবল কল্পনায় সীমাবদ্ধ ছিল।

আরো পড়ুন- ISRO প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ছবি ও ভগবদ্গীতা সহ ১৯টি স্যাটেলাইট মহাকাশে উৎক্ষেপণ করল

এই সম্পূর্ণ প্রজেক্ট এর পিছনে যে কোম্পানিটির রয়েছে সেটির নাম অরবিটাল অ্যাসেম্বলি কর্পোরেশন (OAC)। যারা সম্প্রতি এই রিসর্টের একটি সম্ভাব্য ছবি, ভিডিও ও অন্যান্য তথ্য গুলি অনলাইনে প্রকাশ করেছে। কোম্পানির তরফ থেকে জানানো হয় এই লাক্সারি হোটেল বা রিসর্টটির নাম ভয়েজার স্টেশন (Voyager station)। যেটি একসাথে ৪০০ জনকে বহন করতে পারবে এবং মহাকাশ থেকে পৃথিবীর অভূতপূর্ব দৃশ্য দেখাবে টুরিস্ট ও গবেষকদের।

ভয়েজার স্টেশনটি কেমন দেখতে হবে সে বিষয় প্রকাশ্যে আসে ইন্টারনেটে। যেখানে দেখানো হয়েছে, এই হোটেলটি হবে সম্পূর্ণ গোলাকৃতির। এটি মহাকাশে ঘুরতে থাকবে এবং এটিকে এমনভাবে ডিজাইন করা হয়েছে যাতে এর ঘূর্ণনের মান বাড়িয়ে বা হ্রাস করে এটির ভিতরে বিভিন্ন স্তরে কৃত্রিম মাধ্যাকর্ষণ তৈরি করা যায়।

ভয়েজার স্টেশনটি তৈরি করা হবে তাদের জন্য, যারা তাদের জীবনে একবারের জন্য হলেও পৃথিবীর বাইরে মহাকাশে কম মধ্যাকর্ষণ অনুভব করতে এবং সাথেই একটি লাক্সারি হোটেলের আনন্দ নিতে চান। যদিও এই অনুভূতি সীমিত কিছু মানুষদের জন্যই। কারণ এখানে যেতে গেলে আপনাকে দিতে হবে ২৫ মিলিয়ন ডলার যা ভারতীয় টাকায় ১৮২ কোটি টাকা

“মহাকাশে ভাসমান রেস্তোরা, ২০২৭ সালের মধ্যেই শুরু হতে চলেছে এই রেস্তোরা”-এ 2-টি মন্তব্য

Leave a Reply