Parcevarence রোভারের নয়া অভিযান, সাথেই ১২ তম উড়ানের প্রস্তুতি নিচ্ছে Ingenuity

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র নাসা মঙ্গল গ্রহের পৃষ্ঠদেশে নতুন অভিযানের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে। মোট দুটি অভিযানের জন্য প্রস্তুতি নেয়া শুরু করেছেন তারা। মঙ্গল গ্রহের মাটিতে নতুন এলাকা থেকে নমুনা সংগ্রহ করা এবং Ingenuty হেলিকপ্টারের ১২ তম উড়ান।

কিছুদিন আগেই মঙ্গল গ্রহের মাটি থেকে নমুনা সংগ্রহ করতে ব্যর্থ হয়েছিল নাসার অন্যতম মার্স রোভার পার্সিভিয়ারেন্স। সে কারণে যদি নাসা এই অভিযানে মঙ্গল গ্রহ থেকে পাথরের নমুনা সংগ্রহ করতে সফল হয় তবে এটিই হবে লালগ্রহের মাটি থেকে প্রথম সংগ্রহ করা নমুনা। মার্স রোভার পার্সিভিয়ারেন্স লালগ্রহ থেকে নমুনা সংগ্রহ করে পৃথিবীতে ফিরিয়ে নিয়ে আসবে। এর পূর্বে মঙ্গল এর নমুনা সংগ্রহ ব্যর্থতার কারণ হিসেবে নাসা জানিয়েছিল অদ্ভুত এক ধরনের নরম পাথর থাকার কারণে নমুনা সংগ্রহ করতে অসফল হয়েছিল রোভার।

ন্যাশনাল অ্যারোনটিক্স অ্যান্ড স্পেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (নাসা)-এর বিজ্ঞানীদের কথায়, পার্সিভিয়ারেন্স দ্বারা সংগৃহীত পাথর যথেষ্ট পরিমাণে শক্তিশালী ছিল না, যার কারণে নমুনা গুলি উপযুক্ত হিসেবে পরিগণিত হয় নি। এছাড়াও যে উপাদানগুলি সংগ্রহ করা হয়েছিল তার বেশিরভাগই ছিল গুঁড়ো আকারের। প্রায় ৮ সেন্টিমিটার গভীর গর্ত করা হয়েছিল লালগ্রহের মাটিতে। কিন্তু নমুনা সংগ্রহ করা সম্ভব হয়নি। যে কারণে দ্বিতীয় সুযোগে আর কোন ভুল করতে চান না তারা। বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন দ্বিতীয় অভিযানে সেডিমেন্টারি রক সংগ্রহ করা হবে। আগামী এক দশকের মধ্যে এই ধরণেরই নমুনা সংগ্রহ করা হবে মোট ৩৫ টি এবং তা পৃথিবীতে নিয়ে আসা হবে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার জন্য।

অন্যদিকে নাসার অপর একটি অভিযান হতে চলেছে লাল গ্রহে। Ingenuity Mars Helicopter ১২ তম উড়ান সম্পন্ন করতে চলেছে। মঙ্গল গ্রহে হেলিকপ্টারটির অতিবাহিত দিন এর সংখ্যা ১৭০ sol (martian days)। বর্তমানে এটি South Séítah অঞ্চলে পর্যবেক্ষণ চালাচ্ছে। Ingenuity এর আগামী উড়ান হতে চলেছে অনেক বেশি জটিল। কারণ এবারের উড়ানে যুক্ত হবে AutoNav ক্যাপাবিলিটি। বর্তমানে Ingenuity এবং Perseverance রোভার দুটির দূরত্ব অনেকটাই বেশি। আপাতত সেই দূরত্ব কিছুটা কমিয়ে আনার চেষ্টা করছেন বিজ্ঞানীরা।

আরো পড়ুন-পৃথিবী ধ্বংসের মূল কারণ হতে পারে এই গ্রহাণু? জানালো নাসা।

মঙ্গল গ্রহে দক্ষিনে থাকা South Séítah এলাকার যে অংশের প্রতি বিজ্ঞানীরা সবচেয়ে বেশি আকর্ষিত সেই এলাকাটি রয়েছে পূর্ব এবং উত্তর-পূর্ব এলাকা জুড়ে। বিজ্ঞানীদের দাবি ১২ তম উড়ানে Ingenuity হেলিকপ্টার ১০ মিটার উঁচু দিয়ে প্রায় ২৩৫ মিটার অগ্রসর হবে এবং ওই এলাকার কাছাকাছি নির্দিষ্ট এলাকায় পৌঁছানোর পর সারফেস এরিয়ার ছবি তুলবে। তারা জানিয়েছেন ওই নির্দিষ্ট অঞ্চলের স্টিরিও অথবা ৩ডি ইমেজ তুলবেন তারা। মোট ১০ টি রঙের মিশ্রণে তোলা হবে সেই ছবি। যা পরবর্তীকালে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার মাধ্যমে মঙ্গল গ্রহ সম্পর্কে আরো নানান অজানা তথ্য জানতে পারবেন বিজ্ঞানীরা। এর পরবর্তীতে অভিযান সম্পন্ন হলে Ingenuity পুনরায় তার পূর্বের জায়গাতেই ফিরে আসবে।

“Parcevarence রোভারের নয়া অভিযান, সাথেই ১২ তম উড়ানের প্রস্তুতি নিচ্ছে Ingenuity”-এ 1-টি মন্তব্য

Leave a Reply