নিকোলা টেসলার যুগান্তকারী আবিষ্কার

নিকোলা টেসলা: আমরা সকলেই জানি বাল্বের আবিষ্কারক ছিলেন থমাস এডিসন। তার সঙ্গে তিনি ছিলেন ডিসি কারেন্ট এর ও আবিষ্কারক। বৈদ্যুতিক এবং বৈদ্যুতিন আবিষ্কারে আরেকটি জনপ্রিয় নাম হল নিকোলা টেসলা। তিনি তার আবিষ্কারের মাধ্যমে বদলে দিয়েছিলেন পুরো বিশ্বকে। নিকোলা টেসলা ছিলেন বিশ্বের মহান বিজ্ঞানীদের মধ্যে একজন। তার আবিষ্কার গুলো ছাড়া হয়তো আজকের আধুনিক জীবন সম্ভব ছিল না। তার জীবনযাত্রায় তার অদ্ভুত আবিষ্কার গুলির জন্য তাকে রহস্যমযয়ি বিজ্ঞানী বলা হত। তার আবিষ্কারগুলো বলে দেয় তার সুদুরপ্রসারী চিন্তাধারার কথা।

নিকোলা টেসলা ১০ই জুলাই ১৮৫৬ খৃষ্টাব্দে অস্ট্রিয়ান সাম্রাজ্যের (বর্তমান ক্রোয়েশিয়া) সামরিক সীমান্তের উইলহীন স্মিলজান গ্রামে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। ছোটবেলা থেকেই নিকোলা টেসলা মেধাবী এবং বুদ্ধিমান ছিলেন। নিকোলা টেসলার পিতা একজন পাদ্রী ছিলেন।

১৮৮০ এর দশকের গোড়ার দিকে নতুন বৈদ্যুতিক শক্তি শিল্পে কন্টিনেন্টাল এডিসনে কাজ করার অভিজ্ঞতা অর্জন করেছিলেন। ১৮৮৪ সালে তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি জমান, সেখানে তিনি স্থায়ী নাগরিক হয়ে ওঠেন। সেই সময় আমেরিকায় থমাস এডিসন লাইট বাল্ব আবিষ্কার করে ফেলেছিল এবং তার তৈরি সরাসরি বিদ্যুৎ এর প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করছিল। সেই সময় থমাস এডিসনের সরাসরি বিদ্যুৎ প্রযুক্তি চমৎকার থেকে কিছু কম ছিলনা। কিন্তু এই প্রযুক্তিতে কিছু কম ছিল।

আরো পড়ুন- আশ্চর্য এক সমুদ্র, যেখানে কোনো প্রাণী বা বস্তু ডুবে যায় না

নিকোলা টেসলার আবিষ্কার

এরপর নিকোলা টেসলা এডিশনের ডিসি প্রজেক্ট (সরাসরি বিদ্যুৎ) এর উপর কাজ করা শুরু করে দেয়। খুব দ্রুত নিকোলা টেসলা এডিশনের ডিসি বা ডাইরেক্ট কারেন্ট প্রযুক্তির দূর্বলতা দূর করতে সক্ষম হন। কিন্তু তিনি এডিসনের কাছ থেকে আর্থিক দিক দিয়ে কিছু প্রতারিত হন। এই সময় নিকোলা টেসলা তার পরিবর্তী বিদ্যুৎ প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করতে চাইছিলেন তাই তিনি গ্রুপ অফ ইনভেস্টার এর সাহায্যে তার নিজের গবেষণাগার নির্মাণ করেন। এই ল্যাবে তৈরি হয়েছিল নানা রকম এ সি বৈদ্যুতিক মোটর এবং এ সি বৈদ্যুতিক যন্ত্রাংশ।

আগে ডিসি কারেন্ট ব্যবহার হতো যা বেশি দূরত্বে পৌঁছানো সম্ভব ছিল না। কিন্তু পরবর্তীতে নিকোলা টেসলার অল্টারনেটিভ কারেন্ট বা এ সি কারেন্ট প্রযুক্তির মাধ্যমে তারের মাধ্যমে বিদ্যুৎ উৎপত্তিস্থল থেকে বহুদূরে পৌঁছানো সম্ভব হয়েছিল। টেসলা কয়েল নিকোলা টেসলার ই আবিষ্কার ছিল। এর পর তিনি অক্সিলেটার নামের একটি যন্ত্র নির্মাণ করেন যা বিদ্যুৎ তৈরি করত এবং যার বিদ্যুৎ শক্তি ছিল ভয়ঙ্কর। এরপর ১৮৯৮ সালে তিনি একটি রেডিও সিগন্যাল দ্বারা পরিচালিত একটি মডেল বোট বা নৌকা বানান। যা সেই সময় এর তুলনায় অনেকটাই অদ্ভুত ও অসাধারণ বস্তু ছিল। তারের মাধ্যম ছাড়াই এক স্থান থেকে আরেক স্থানে বিদ্যুৎ কে পাঠানো যায় এই প্রযুক্তিতে টেসলা কাজ করতে চাইলেও তা সম্পূর্ণ হয়নি। একটি যন্ত্রের ধারণা দিয়েছিলেন যা দেখতে হুবহু ইউ এফ ওর মত।এছাড়াও তার ছিল কিছু অদ্ভুত আবিষ্কার। আর এই অদ্ভুত আবিষ্কার গুলোর জন্যই তাকে রহস্যময় বিজ্ঞানী বলা হত। তার উল্লেখযোগ্য আবিষ্কার গুলির মধ্যে বিশিষ্ট ছিল এসি কারেন্ট বা পরিবর্তী বিদ্যুৎ প্রযুক্তি। যা নতুন রুপ গড়ে দিয়েছে আজকের সমাজের।

“নিকোলা টেসলার যুগান্তকারী আবিষ্কার”-এ 2-টি মন্তব্য

Leave a Reply