মঙ্গল গ্রহে ঘুরতে যাওয়ার সুযোগ! কিভাবে আবেদন জানাবেন? জানালো নাসা

দেশ ভ্রমণের স্বপ্ন তো অনেকেরই থাকে আর এবার পৃথিবী ছেড়ে সৌরজগতের অন্য এক গ্রহে ঘুরতে যাওয়ার সুযোগ নিয়ে এসেছে আমেরিকার অন্যতম মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র ন্যাশনাল অ্যারোনটিক্স অ্যান্ড স্পেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (নাসা)। সৌরজগতের এই অন্য গ্রহটি হল মঙ্গল। আপনিও কি মঙ্গল গ্রহে ঘুরতে যেতে চান? তাহলে আপনাকে সুযোগ করে দেবে মার্কিন মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র নাসা। অবিশ্বাস্য মনে হলেও এটাই সত্যি। লালগ্রহের মাটিতে পদার্পণ থেকে আগাম সমস্ত ধরনের সমস্যার সমাধান এবং কি কি করনীয় সেসব বিষয়ে সাধারণ মানুষকে প্রশিক্ষণ দেবে নাসা। মঙ্গল গ্রহে যাওয়ার অ্যাপ্লিকেশন চেয়ে টুইটারে বার্তাও দিয়েছে মার্কিন এই স্পেস এজেন্সি।

মঙ্গলে কারা যেতে পারবেন এবং কিভাবেই বা যাবেন সে সমস্ত কিছুই নাসা একটি বিবৃতিতে জানিয়েছে। নাসা দ্বারা প্রকাশ করা বিবৃতি অনুযায়ী মোট ৪ জন এই সুবর্ণ সুযোগ পাচ্ছেন। এই বিশেষ ৪ জন ব্যক্তিকে প্রশিক্ষণ দ্বারা সম্পূর্ণভাবে প্রস্তুত করা হবে মঙ্গলে যাওয়ার জন্য। মঙ্গল অভিযানে ভবিষ্যতে যে ধরনের সমস্যা হতে পারে এবং সেই সমস্যাগুলোর সমাধান কি হবে সেই সমস্ত বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে একটি সিমুলেটেড মার্টিন এক্সপ্লোরেশন এনভারমেন্ট এর মাধ্যমে।

জানা গিয়েছে নাসা মঙ্গল গ্রহে যাওয়ার জন্য যে বিশেষ ৪ জনকে বেছে নেবেন তাদের এক বছরের জন্য মার্স ডিউন আলফাতে থাকতে হবে। মার্স ডিউন আলফা হল ১৭০০ বর্গফুটের একটি জায়গা, যেখানে মঙ্গল গ্রহের মতো পরিবেশ তৈরি করা হয়েছে কৃত্রিমভাবে। এই সম্পূর্ণ মডিউলটি তৈরি করা হয়েছে আইকন থ্রিডি প্রিন্টার-এর সাহায্যে। টেক্সাসের হাউস্টনে অবস্থিত জনসন স্পেস সেন্টারে নির্মাণ করা হবে মার্স ডিউন আলফা। নাসার তরফ থেকে জানানো হয়েছে আগামী ২০০ সালের ১ সেপ্টেম্বর থেকে ৩০ নভেম্বরের মধ্যেই এই মিশনটি শুরু করা হবে। ১৭ হাজার বর্গফুটের এই নকল পরিবেশে আলাদা আলাদা ঘর, মেডিকেল এরিয়া, দুটি বাথরুম, একটি রান্নাঘর, এমনকি চাষবাস, বিশ্রামাগার এবং ব্যায়াম করার জন্য নির্দিষ্ট জায়গা তৈরি করা হবে।

মঙ্গল অভিযানের আগে যে সমস্ত সমস্যার সম্মুখীন হতে পারেন অভিযাত্রীরা ঠিক সেই ধরণের পরিস্থিতিতে রাখা হবে এই বিশেষ চারজনকে। পরিস্থিতি অনুযায়ী নির্বাচিত চারজন কি প্রতিক্রিয়া দিচ্ছেন তা পর্যবেক্ষণ করা হবে। যার সাহায্যে আগামী দিনে মঙ্গল অথবা চাঁদের মতো জায়গায় যাওয়া সম্ভব কিনা এবং সম্ভব করার জন্য কি কি পদক্ষেপ নেওয়া উচিত সে সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা পাবেন বিজ্ঞানীরা। নাসার এই অভিযানের জন্য অ্যাপ্লিকেশন জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ১২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত।

আবেদন জমা দেওয়ার শর্তাদি:
  • মঙ্গল অভিযানে যাওয়ার জন্য আবেদনকারীর বয়স হতে হবে ৩০ থেকে ৫৫ বছরের মধ্যে।
  • আমেরিকার বাসিন্দা হওয়া আবশ্যক।
  • আবেদনকারীকে সায়েন্স, ইঞ্জিনিয়ারিং ম্যাথমেটিক্স এবং টেকনোলজি তে পোস্ট গ্রাজুয়েট হতে হবে।
  • কোনরকম নেশার অভ্যাস থাকলে আবেদন করতে পারবেন না।
  • দুই বছরের STEM বিষয় অভিজ্ঞতা থাকা প্রয়োজন অথবা এয়ারক্রাফটে ১০০০ ঘন্টার পাইলট-ইন-কমান্ড এর অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।
  • সর্বশেষ, নাসার ফ্লাইট অ্যাস্ট্রোফিজিক্যাল পরীক্ষায় পাশ হতে হবে আবেদনকারীকে।

আরো পড়ুন-তিনটি ছায়াপথের সংঘর্ষ! অত্যাশ্চর্য ছবি শেয়ার করল নাসার হাবল টেলিস্কোপ

উপরিউক্ত শর্তগুলি ছাড়াও নাসা জানিয়েছে মাস্টার ডিগ্রী সংক্রান্ত যে রিকোয়ারমেন্ট জানানো হয়েছে তার বদলে এমন কোন ব্যক্তি যিনি STEM এর ক্ষেত্রে দুই বছরের জন্য ডক্টরাল প্রোগ্রামে কাজ করেছেন অথবা মেডিকেল ডিগ্রী শেষ করেছেন এছাড়াও পাইলট টেস্ট প্রোগ্রামে অংশ নিয়ে পাশ করেছেন তারাও আবেদন জানাতে পারবেন মঙ্গল অভিযানের যাওয়ার জন্য। এছাড়াও চার বছরের প্রফেশনাল এক্সপেরিয়েন্স মিলিটারি অফিসার ট্রেনিং অথবা STEM-এ ব্যাচেলর অফ সাইন্স ডিগ্রী থাকলেও আবেদন করতে পারবেন। নাসা জানিয়েছে এই মিশনে ক্রু সদস্যরা বিজ্ঞান ভিত্তিক গবেষণার পাশাপাশি ভার্চুয়াল রিয়েলিটি এবং রোবটিক পর্যবেক্ষণ করবেন।

“মঙ্গল গ্রহে ঘুরতে যাওয়ার সুযোগ! কিভাবে আবেদন জানাবেন? জানালো নাসা”-এ 1-টি মন্তব্য

Leave a Reply