সাইরাস মিস্ত্রি কে সরানো সঠিক। সর্বোচ্চ আদালতে জয় টাটা গোষ্ঠীর

টাটা গোষ্ঠীর চেয়ারম্যানের পদ থেকে সাইরাস মিস্ত্রী কে অপসারণ করা একদম সঠিক। কোনো আইন ভাঙ্গা হয়নি, আজ রায় দিল ভারতের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্ট।

২০১২ সালে সাইরাস প্যালনজি মিস্ত্রিকে টাটা গোষ্ঠীর চেয়ারম্যান পদে বসানো হয়। ৪ বছর চেয়ারম্যান থাকার পর ২০১৬ সালে হঠাৎই চেয়ারম্যান পদ থেকে সাইরাস মিস্ত্রি কে অপসারণ করা হয়, চেয়ারম্যান হয় রতন টাটা। এরপর সাইরাস মিস্ত্রি ‘জাতীয় কোম্পানি আইন আবেদন ট্রাইব্যুনালে’ জান এবং অভিযোগ জানায় যে তাকে বেআইনিভাবে সরানো হয়েছে।

এরপর ২০১৯ সালের ১৮ ই ডিসেম্বর জাতীয় ট্রাইব্যুনাল জানিয়ে দেয় যে ২০১৬ সালে টাটা গ্রুপের চেয়ারম্যান পদ থেকে সাইরাস মিস্ত্রি কে নিয়ম মেনে সরানো হয়নি। সেই রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে টাটা গোষ্ঠী সুপ্রিমকোর্টে যায়। শুক্রবার এই ঐতিহাসিক রায় দেয় ভারতের সর্বোচ্চ আদালত।

ভারতের কর্পোরেট জগতের ইতিহাসে বোর্ডরুমে হওয়া লড়াই এর একটি উদাহরণ হল এই ঘটনাটি। সর্বোচ্চ আদালতের রায়ের মাধ্যমে যার সমাপ্ত হল শুক্রবার। এই রায় মিস্ত্রি পরিবার এবং টাটা সনস, দুই পরিবারের বিচ্ছেদ কে আরও সহজ করলো। নিয়ম মেনেই সাইরাস মিস্ত্রি কে সরানো হয়েছে বলেছে সর্বোচ্চ আদালত।

আরো পড়ুন- অতীতে ফিরে যেতে চান, Google Earth এবার সেই সুযোগ এনে দিল

শুক্রবার এই রায়ের পর রতন টাটা এক আবেগপ্রবণ বার্তা টুইটারের মাধ্যমে প্রকাশ করে। যেখানে লেখা আছে, “আমি আজ মহামান্য সুপ্রিম কোর্টের রায়ের জন্য কৃতজ্ঞ। এটা হার বা জয়ের প্রশ্ন নয়, আমার ও আমাদের গোষ্ঠীর প্রতি প্রতিনিয়ত আক্রমণ করা হয়েছে। গোষ্ঠীর নীতি নিয়ে প্রশ্ন করা হয়। মূল্যবোধের দ্বারা পরিচালিত হয় এই গোষ্ঠী, আদালতের রায় এটাই প্রমান করলো”।

Twitter source- @RNTata2000 (Ratan Tata)

যাইহোক কর্পোরেট দুনিয়ার একটি গুরুত্বপূর্ণ পদের জন্য এত বড় লড়াই খুব কমই দেখা যায় বর্তমানে টাটা গ্রুপের মালিকের অংশীদারিত্বে টাটা সনস ৬৬% ও শাপূর্জি পল্লোনজি গ্রুপ ১৮% রয়েছে।

“সাইরাস মিস্ত্রি কে সরানো সঠিক। সর্বোচ্চ আদালতে জয় টাটা গোষ্ঠীর”-এ 3-টি মন্তব্য

Leave a Reply