ভারতের সর্বকনিষ্ঠ বিচারক হলেন মায়ানক প্রতাপ সিং

ভারতের সর্বকনিষ্ঠ বিচারক: বর্তমান সময়ে পশ্চিমবঙ্গ তথা ভারতে চাকরি-বাকরির সংখ্যা যথেষ্ট কম ফলে অনেক ছাত্র-ছাত্রী মাঝপথে হাল ছেড়ে দেন। কিন্তু এরই মাঝে আজ এক অনুপ্রেরণা মূলক বাস্তব গল্প তুলে ধরব আপনাদের সামনে। হ্যাঁ ভারতের সর্বকনিষ্ঠ বিচারক, মাত্র ২১ বছর বয়সে বিচারক হলেন রাজস্থানের মায়ানমার প্রতাপ সিং। তিনি বর্তমানে ভারতের সবচেয়ে কমবয়সি বিচারক।

রাজস্থানের মায়ানক প্রতাপ সিং উচ্চমাধ্যমিক পাশ করার পর LLB তে ভর্তি হন যেখানে তিনি পাঁচ বছর পড়াশোনা করেন এবং সফলভাবে উত্তীর্ণ হন। এরপর তিনি রাজস্থানের জুডিশিয়াল সার্ভিস পরীক্ষায় বসেন এবং উত্তীর্ণ হন। যে পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে পড়ুয়াদের বছরের পর বছর সময় লেগে যায় সেই পরীক্ষা প্রথমবারেই সফলভাবে উত্তীর্ণ হন তিনি।

তবে আপনাদের বলে রাখি ভারতের যে কোন বিচারক পদে আবেদন করার জন্য সর্বনিম্ন বয়স হয় ২৩ বছর, কিন্তু ২০১৯ সালে রাজস্থান জুডিশিয়ারি সেই বয়স কে কোমিয়ে ২১ বছরে নিয়ে আসে এবং যার পূর্ণ সদ্ব্যবহার করেন মায়ানক। জুডিশিয়ারি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে ইতিহাস তৈরি করেন মায়ানক। ভারতের সর্বকনিষ্ঠ বিচারক রূপে নিজের নাম ইতিহাসে তোলেন।

আরো পড়ুন- 425 ফুট লম্বা সাপের খোঁজ, গুগল ম্যাপ এর ছবি ঘিরে ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়া

সেই সময় সংবাদমাধ্যমকে তিনি বলেছিলেন, “সমাজে বিচারকদের জন্য সংরক্ষিত গুরুত্ব এবং সম্মানের ভিত্তিতে আমি সর্বদা বিচার বিভাগীয় পরিষেবাগুলির প্রতি আকৃষ্ট ছিলাম। আমি রাজস্থান বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ২০১৪ সালে পাঁচ বছরের এলএলবি কোর্সে ভর্তি হয়েছিলাম, যা এই বছর শেষ হয়েছিল,”
“আমি আমার সাফল্যে উচ্ছ্বসিত এবং আমি আমার পরিবার, শিক্ষক এবং সমস্ত শুভাকাঙ্ক্ষীদের তাদের অবদানের জন্য ধন্যবাদ জানাই যা আমাকে প্রথম প্রচেষ্টায় পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে সাহায্য করেছিল।”

আজকের এই নিবন্ধটি ২০১৯ সালের, অনুপ্রেরণামূলক গল্পের উদ্দেশ্যে আবারো এটি দর্শকদের কাছে উপস্থাপিত করা হলো।

Leave a Reply