জন ধন যোজনা অনলাইন আবেদন

জন ধন যোজনা অনলাইন আবেদন: ভারতের প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদি ২০১৪ সালের আগস্ট মাসে জন ধন যোজনা চালু করেছিলেন। জন ধন যোজনার প্রধান উদ্দেশ্য ছিল প্রত্যেকটি পরিবারের প্রত্যেকটি ব্যক্তির অন্তত একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট সুনিশ্চিত করা। এই প্রকল্পের মাধ্যমে প্রত্যেক নাগরিককে ব্যাংকের সুবিধা এবং সরকার কর্তৃক পাশ করা বিভিন্ন আর্থিক ভর্তুকিতে সুবিধা প্রদান করা। এই প্রকল্পের অধীনে এমন ব্যক্তি যাদের কোন ব্যাংক অ্যাকাউন্ট নেই তারা যেকোনো ব্যাংকের শাখায় বা বিজনেস করেসপন্ডেন্ট আউটলেটে একটি সেভিংস ব্যাংক ডিপোজিট একাউন্ট খুলতে পারবেন। প্রধানমন্ত্রী জন ধন যোজনার আওতায় যদি আপনি অ্যাকাউন্ট খুলতে চান তাহলে এই সমস্ত তথ্য বলি আপনার অবশ্যই জেনে রাখা প্রয়োজন।

জন ধন যোজনা সুবিধা:

  • ব্যাংক একাউন্ট বিহীন যে কোন ব্যক্তি একটি মৌলিক সঞ্চয় ব্যাংক একাউন্ট খুলতে পারবে এই যোজনার মাধ্যমে।
  • জন ধন যোজনার অধীনে ন্যূনতম ব্যাংক ব্যালেন্স বজায় রাখার কোন প্রয়োজন নেই।
  • এই একাউন্টে জমা টাকার উপরে সুদ পাওয়া যায়।
  • প্রত্যেকটি জন ধন যোজনা অ্যাকাউন্ট হোল্ডারদেরকে Rupay ডেবিট কার্ড প্রদান করা হয়।
  • প্রত্যেক অ্যাকাউন্ট হোল্ডারদের ইস্যু করা Rupay কার্ডের সাথে এক লক্ষ টাকা দুর্ঘটনা বীমা কভার (২৮-১০-২০১৮ এরপর খোলা নতুন একাউন্টগুলিতে দুই লক্ষ টাকা) দেওয়া হয়।
  • যোগ্য অ্যাকাউন্ট হোল্ডারদের ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত ওভারড্রাফ্ট ফেসিলিটি (OD) প্রদান করা হয়।
  • জন ধন যোজনা অ্যাকাউন্টগুলি সরাসরি বেনিফিট ট্রান্সফার (DBT), প্রধানমন্ত্রী জীবনজ্যোতি বীমা যোজনা (PMJJBY), প্রধানমন্ত্রী নিরাপত্তা বীমা যোজনা (PMSBY), মাইক্রো ইউনিট ডেভলপমেন্ট এন্ড রিফাইনান্স এজেন্সি ব্যাংক যোজনা (MUDRA), অটল পেনশন যোজনা (APY) স্কিমের জন্য যোগ্য।

জন ধন যোজনা: যোগ্যতার মানদন্ড

জন ধন যোজনার অধীনে জিরো ব্যালেন্সে একটি সাধারণ সেভিংস ব্যাংক ডিপোজিট একাউন্ট (BSBDA) খোলার জন্য নিম্নলিখিত যোগ্যতার মানদণ্ড গুলি অনুসরণ করতে হবে।

  • প্রথমত আপনাকে একজন ভারতীয় নাগরিক হতে হবে
  • আপনার বয়স হতে হবে ১০ বছরের ঊর্ধ্বে
  • আপনার কোন ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থাকা যাবে না

সেভিংস ব্যাংক ডিপোজিট একাউন্ট প্রদানকারী ব্যাংকের তালিকা:

জন ধন যোজনা এর আওতায় এই সকল সেভিংস ব্যাংক ডিপোজিট একাউন্ট প্রদানকারী ব্যাংকে জন ধন যোজনা অনলাইন আবেদন জানাতে পারবেন। জিরো ব্যালেন্স একাউন্ট খোলার জন্য আপনি নিম্নলিখিত যে কোন ব্যাংকের শাখা গুলিতে আপনার ব্যাংক একাউন্ট খুলতে পারবেন।

  • স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া
  • আন্ধ্রা ব্যাংক
  • ব্যাঙ্ক অফ বরোদা
  • ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া
  • ব্যাঙ্ক অফ মহারাষ্ট্র
  • কর্পোরেশন ব্যাংক
  • কানারা ব্যাঙ্ক
  • ইন্ডিয়ান ব্যাঙ্ক
  • আইডিবিআই ব্যাঙ্ক
  • সেন্ট্রাল ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া
  • পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাংক
  • সিন্ডিকেট ব্যাংক
  • পাঞ্জাব এন্ড সিন্ড ব্যাংক
  • এলাহাবাদ ব্যাংক
  • ইউনিয়ন ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া

সেভিংস ব্যাংক ডিপোজিট একাউন্ট প্রদানকারী প্রাইভেট সেক্টর ব্যাংকের তালিকা:

এই সকল সেভিংস ব্যাংক ডিপোজিট একাউন্ট প্রদানকারী প্রাইভেট সেক্টর ব্যাংকে জন ধন যোজনা অনলাইন আবেদন জানাতে পারবেন

  • আইসিআইসিআই ব্যাংক লিমিটেড
  • অ্যাক্সিস ব্যাঙ্ক লিমিটেড
  • এইচডিএফসি ব্যাংক লিমিটেড
  • ইন্দুসিন্ড ব্যাংক লিমিটেড
  • ফেডারেল ব্যাংক লিমিটেড
  • আইএনজি ভ্যায়া ব্যাংক লিমিটেড
  • কোটাক মাহিন্দ্রা ব্যাংক লিমিটেড
  • কার্নাটাকা ব্যাংক লিমিটেড
  • ইয়েস ব্যাঙ্ক লিমিটেড
  • ধনলক্ষ্মী ব্যাঙ্ক লিমিটেড

জন ধন যোজনা অনলাইন আবেদন: একাউন্ট খোলার জন্য প্রয়োজনীয় নথি

জন ধন যোজনা অনলাইন আবেদন জানানোর জন্য এবং ব্যাংকে একাউন্ট খোলার জন্য প্রয়োজনীয় KYC (নো ইওর কাস্টমার) জমা করার জন্য নিম্নলিখিত নথি গুলি অবশ্যই প্রয়োজন।

  • পাসপোর্ট
  • প্যান কার্ড
  • ড্রাইভিং লাইসেন্স
  • আধার কার্ড
  • ভোটার আইডেন্টিটি কার্ড
  • রাজ্য সরকারের একজন আধিকারিক স্বাক্ষরিত NREGA দ্বারা জারি করা জব কার্ড
  • কেন্দ্রীয়/রাজ্য সরকারের বিভাগ, সংবিধিবদ্ধ/নিয়ন্ত্রক কর্তৃপক্ষ, পাবলিক সেক্টর আন্ডারটেকিংস নির্ধারিত বাণিজ্যিক ব্যাঙ্ক এবং সরকারি আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলির দ্বারা জারি করা ছবি সহ আইডি কার্ড; বা একজন গেজেটেড অফিসার দ্বারা জারি করা ব্যক্তির যথাযথভাবে সত্যায়িত ছবি সহ একটি চিঠি
  • যদি আপনার কাছে কোনো বৈধ নথি না থাকে, তবুও আপনি একটি স্ব-স্বাক্ষরিত ছবি জমা দিয়ে বা ব্যাঙ্ক কর্মকর্তার উপস্থিতিতে একটি থাম্বপ্রিন্ট দিয়ে ব্যাঙ্কে একটি ‘স্মল অ্যাকাউন্ট’ খুলতে পারেন

জন ধন যোজনা অনলাইন আবেদন:

জন ধন যোজনা অনলাইন আবেদন পুনরায় চালু করা হয়েছে। যাদের এর পূর্বেই জন ধন যোজনার অ্যাকাউন্ট আছে তাদের প্রত্যেকের একাউন্টে ১০,০০০ টাকা করে দেওয়ার পরিকল্পনা করেছে ভারত সরকার। যাদের এখনো পর্যন্তজন ধন যোজনা অ্যাকাউন্ট নেই তারা অনলাইন আবেদনের মাধ্যমে তাদের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খুলতে পারবেন। প্রধানমন্ত্রী জন ধন যোজনা অনলাইন আবেদন জানানোর জন্য নিম্নলিখিত পদক্ষেপগুলি অনুসরণ করতে হবে।

  • জন ধন যোজনা অনলাইন আবেদন জানানোর জন্য প্রথমে আপনার মোবাইল বা ডেস্কটপ এর যে কোন ব্রাউজারে চলে যান।
জন ধন যোজনা অনলাইন আবেদন
  • আপনার ব্রাউজারটি খোলার পর সেখানে আপনাকে টাইপ করতে হবে pmjdy.gov.in
  • এরপর আপনাকে সার্চ বাটনে ক্লিক করতে হবে
  • আপনার সামনে একটি নতুন ওয়েব পেজ খুলবে যেখানে আপনি দেখতে পারবেন কতজন এখনো পর্যন্ত এই প্রকল্পের সুবিধা লাভ করেছেন এবং কত টাকা সরকারের তরফ থেকে অ্যাকাউন্টগুলোতে জমা পড়েছে।
  • এই ওয়েব পেজ থেকেই আপনাকে অনলাইন আবেদনের জন্য ফরম ফিলাপ করতে হবে।
  • এই পেজে আপনি দুটি বিকল্প পেয়ে যাবেন যেখানে একটি থাকবে ‘Account Opening Form Hindi’ এবং অন্যটি ‘Account Opening Form English’
জন ধন যোজনা অনলাইন আবেদন
  • আপনি যে ভাষায় আপনার ফর্মটি ফিলাপ করবেন সেখানে আপনাকে ক্লিক করতে হবে।
  • ক্লিক করার পর আপনাকে একটি পিডিএফ ফাইল ডাউনলোড করার জন্য বলা হবে।
  • পিডিএফ ফাইলটি ডাউনলোড করার পর আপনাকে সেটি ওপেন করতে হবে আপনার ডেক্সটপ বা মোবাইলে।
  • ফ্রম কি ওপেন করার পর আপনি দেখতে পারবেন সেখানে বিভিন্ন তথ্য দেওয়ার জায়গা রয়েছে এবং একটি ছবি দেওয়ার জায়গা রয়েছে।
  • আপনাকে আপনার একটি পাসপোর্ট সাইজ ছবি ফর্ম-এ দিতে হবে, ছবিটি হতে হবে ৬ মাস এর মধ্যে তোলা ছবি। ৬ মাসের পূর্বে কোন ছবি যোগ্য বলে বিবেচিত হবে না।
  • ফর্মের উপরে নম্বর এবং ডেট-এর জায়গাটি ফাঁকা রাখবেন।
  • এরপর আপনাকে ‘Name Of The Brunch’ অর্থাৎ ব্রাঞ্চের নাম দিতে হবে।
  • এর পরবর্তী তথ্য আপনাকে দিতে হবে আপনি শহর অঞ্চল থেকে না গ্রামাঞ্চল থেকে ফরমটি জমা করছেন।
  • এরপর আপনাকে আপনার উপ জেলা বা ব্লকের নাম লিখতে হবে
  • পরবর্তীতে আছে আপনার জেলার নাম সেখানে আপনার জেলার নাম দেবেন।
  • আপনার রাজ্যের নাম।
  • SSA কোড বা আপনার ওয়ার্ড এর নম্বর। যদি আপনি না জানেন তাহলে এই স্থানটি ফাঁকা রাখবেন।
  • আপনার গ্রাম অথবা শহরের কোড নাম্বার। যদি আপনার কোড জানা না থাকে এই স্থানটি ফাঁকা রাখবেন।
  • আপনার গ্রাম অথবা শহরের নাম।
  • এরপরে আপনাকে চলে আসতে হবে আবেদনকারীর বিবরণ অংশে (applicant details)
  • প্রথমে আপনাকে দিতে হবে যার নামে একাউন্ট খোলা হবে তার নাম, Mr/Mrs./Ms বেছে নিয়ে আবেদনকারীর সম্পূর্ণ নামটি এখানে দিতে হবে।
  • আবেদনকারী বিবাহিত না অবিবাহিত।
  • আবেদনকারীর লিঙ্গ – পুরুষ/মহিলা।
  • আবেদনকারীর বাবার নাম।
  • আবেদনকারীর ঠিকানা।
  • আবেদনকারীর পিন কোড।
  • আবেদনকারীর মোবাইল নম্বর বা টেলিফোন নম্বর।
  • আবেদনকারীর জন্মের তারিখ।
  • আবেদনকারীর আধার নম্বর।
  • আবেদনকারীর প্যান কার্ড নম্বর।
  • আবেদনকারীর MNREGA JOB CARD নম্বর।
  • আবেদনকারীর পেশা।
  • আবেদনকারীর বার্ষিক আয়।
  • আবেদনকারীর উপর নির্ভরশীল পরিবারের সদস্য সংখ্যা।
  • আবেদনকারীর সম্পদের বিবরণ দিতে হবে যার মধ্যে রয়েছে –
    আবেদনকারী বাড়ির মালিক কিনা,
    আবেদনকারী কৃষি জমির মালিক কিনা,
    বাড়িতে কোন গৃহপালিত পশু আছে কিনা,
    এবং অন্যান্য।
  • আবেদনকারীর পরিবারের সদস্যের কোন পূর্বের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট আছে কিনা তা আপনাকে দিতে হবে। যদি আপনি ‘Yes’ অপশনে ক্লিক করেন তাহলে আপনাকে আপনার পরিবারের সদস্যদের যে কয়জনের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট আছে সেই সংখ্যাটি দিতে হবে।
  • আবেদনকারীর কিষান ক্রেডিট কার্ড আছে কিনা।
  • সম্পূর্ণভাবে ফিলাপ করার পর আপনি নিচের দিকে একটি ‘Declaration’ অপশন দেখতে পারবেন সেটি আপনি ভাল করে পড়ে নেবেন।
  • এরপর place স্থানে আপনার ঠিকানা এবং date স্থানে আবেদন জমা করার তারিখ উল্লেখ করবেন
  • ‘signature/LTI Of Applicant’-এর জায়গায় আবেদনকারীর সই অথবা বাঁ হাতের বুড়ো আঙ্গুলের টিপসই দিতে হবে।
  • এরপর আপনাকে পূরণ করতে হবে নমিনেশন ফর্ম।
  • নমিনেশন ফর্মে আবেদনকারী যাকে নমিনি রাখবেন তার নাম দিতে হবে।
  • আবেদনকারীর সাথে নমিনির সম্পর্ক লিখতে হবে ‘Relationship’ বক্সের নিচে।
  • নমিনির বয়স দিতে হবে।
  • নমিনি যদি আবেদনকারীর থেকে বয়সে ছোট হয় সেক্ষেত্রে নমিনির জন্ম তারিখ দিতে হবে।
  • এরপর আবেদনকারী এবং নমিনির যদি কোন কারণবশত মৃত্যু হয় সেক্ষেত্রে ব্যাংকে একাউন্টে জমা থাকা টাকা কাকে দিতে হবে সে নামটি আপনাকে দিতে হবে।
  • এরপর place স্থানে আপনার ঠিকানা এবং date স্থানে আবেদন জমা করার তারিখ উল্লেখ করবেন
  • signature/LTI Of Applicant‘-এর জায়গায় আবেদনকারীর সই অথবা বাঁ হাতের বুড়ো আঙ্গুলের টিপসই দিতে হবে।
  • এই ফর্মটি সম্পূর্ণ ফিলাপ করার পর এই ফর্মের সাথে প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস যেমন পাসপোর্ট সাইজ ছবি, প্যান কার্ড, আধার কার্ড, ভোটার কার্ড ইত্যাদি একসাথে জমা করে আপনি আপনার নিকটবর্তী ব্যাংকে যেখানে আপনি জন ধন যোজনা অ্যাকাউন্ট খুলবেন সেই ব্যাংকে এই ফর্মটির সাথে আপনার সম্পূর্ণ KYC এবং অন্যান্য ডকুমেন্টস সাবমিট করে দিতে হবে।

জন ধন যোজনায় নির্বাচিত ব্যাংক গুলিতে এই ফর্মটি জমা দেওয়ার পর ব্যাংকের থেকে আপনি এই প্রকল্পের আওতায় সুবিধাভোগী কিনা তা যাচাই করে দেখা হবে। যদি আপনি এই প্রকল্পের সুবিধা পাওয়ার জন্য যোগ্য হন তাহলে আপনার জিরো ব্যালেন্স একাউন্ট খুলে দেওয়া হবে। যদি আপনি এই যোজনার আওতায় উপযুক্ত না হোন তাহলে আপনাকে ব্যাংক থেকে কেন আপনি এই যোজনার সুবিধা গ্রহণ করতে পারবেন না তা জানিয়ে দেওয়া হবে।

Leave a Reply